আক্রমণের ইঙ্গিত আগে থেকেই ছিল, মুখ্যমন্ত্রীর উপর হামলার প্রতিবাদে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ তৃণমূল

0

কলকাতা: নন্দীগ্রামে প্রচারে গিয়ে গুরুতর আহত হন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যা নিয়ে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। বৃহস্পতিবার তারই প্রতিবাদে পুলিশি গাফিলতির অভিযোগ তুলে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হন পার্থ চট্টোপাধ্যায়, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য এবং ডেরেক ও’ব্রায়েন।

নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ জানিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, আমরা তৃণমূল কংগ্রেসের ৩ প্রতিনিধি নির্বাচন কমিশনে দেখা করেছি। আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় তারা যে ভাবে উদাসীনতা দেখিয়েছেন তার প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা ঠিকঠাকই চলছিল। কিন্তু নির্বাচন ঘোষণার পরই এডিজি, ডিজিকে সরিয়ে দেওয়া হয়। তাপরই এই ধরনের ঘটনা ঘটল। পাশাপাশি তিনি বলেন, নির্বাচন ঘোষণা হওয়ার পর থেকে রাজ্যে আইন শৃঙ্খলার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের। নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর উপর যে আঘাত আসবে তার পূর্বাভাস ছিল। একজন বিজেপি সাংসদের বক্তব্যে পরিষ্কার ছিল তাঁর উপর আক্রমণ হতে পারে।

তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, মুখ্যমন্ত্রীর উপর যে আক্রমণ হল এই দায় কার? এর দায়িত্ব কমিশনকে নিতেই হবে।  বিজেপির একদল প্রতিনিধি এসে যা বলছে পরদিন সেটাই হচ্ছে। আমরা আশা করছি, রাজ্যে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন পরিচালনা ও আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে কমিশন উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে। অন্যদিকে নন্দীগ্রামের ঘটনা নিয়ে ডেকের ও’ব্রায়েন বলেন, নন্দীগ্রামে যা হয়েছে তার বিস্তারিত তথ্য দিয়ে একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে নির্বচান কমিশনে। দেশের একমাত্র মহিলা মুখ্যমন্ত্রী যিনি জেড ক্যাটাগির নিরাপত্তা পান তাঁর সুরক্ষার এই হাল কেন। এই ঘটনা অত্যন্ত লজ্জাজনক। এর দায় কে নেব! এর পেছনে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।