পরিবার পিছু ৫০০ টাকা, ইস্তেহারে সকলের জন্য ন্যূনতম আয়ের প্রকল্পের প্রতিশ্রুতি মমতার

0

কলকাতা: অবশেষ প্রকাশিত হলো তৃণমূলের ইস্তাহার পত্র। আর সেই ইস্তাহারে মাস্টারস্ট্রোক তৃণমূল সুপ্রিমোর। যা ভোটের আগে বড়সড় রাজনৈতিক ‘সিদ্ধান্ত’ মমতার। ইস্তহারে শাসক দল ঘোষণা করেছেন, প্রতি মাসে পরিবার পিছু ৫০০ টাকা করে দেওয়া হবে। তফসিলি জাতি ও উপজাতি পরিবারের ক্ষেত্রে সেটি আবার ১০০০ টাকা। দেশের অর্থনৈতিক বৈষম্য দূর করতে ঠিক এই কথাটাই দীর্ঘদিন ধরে বলে এসেছেন অর্থনীতিবিদরা। সকলের জন্য ন্যূনতম আয় তথা ‘ইউনিভার্সাল বেসিক ইনকাম’ প্রকল্পটি গ্রহণ করার পরামর্শ দিয়ে আসছেন। করোনা পর্বে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবীদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় দেশের সরকারকে মানুষের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সরাসরি টাকা ঢোকানোর প্রকল্প চালু করার উপদেশ দিয়েছিলেন। এবার সেই পথেই রাজ্য সরকার নির্বাচনী ইস্তাহারে মানুষকে সরাসরি টাকা দেওয়ার প্রকল্প চালু করার প্রতিশ্রুতি দিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নেতৃত্বাধীন সরকার। ইস্তাহার প্রকাশ করতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “বাড়ির মহিলাদের হাতে অনেক সময় কোনও টাকা থাকে না। এই টাকাটা হাতে থাকলে সবারই কাজে লাগবে।”

প্রসঙ্গত দুয়ারে সরকার ও স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প সাড়া ফেলেছে গোটা রাজ্যে। এই পরিস্থিতিতে ইস্তাহারে এহেন প্রতিশ্রুতি ভোটের আগে বড় ‘চমক’ মমতার। সকলের জন্য ন্যূনতম আয়ের প্রকল্প মমতাকে ভোটে অনেকটা এগিয়ে দেবে বলে তৃণমূল নেতারা দাবি করেছেন। দেশে এখনও কোনও সরকার এই ধরনের প্রকল্পের কথা ভাবার সাহস দেখায়নি। মমতা এদিন ইস্তাহার প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন, “অতীতে ইস্তাহারে যা যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছি তার ১১০ শতাংশ পূরণ করেছি। এবারও তাই হবে।” উল্লেখ্য গত মাসে রাজ্যের ভোট অন অ্যাকাউন্ট বাজেট প্রস্তাবে মমতা ষাটোর্ধ্ব সমস্ত মানুষের জন্য মাসে হাজার টাকা পেনশনের কথা বলেছিলেন। এবার ইস্তাহারে তিনি আরও এক পা এগিয়ে গেলেন। তৃণমূল ক্ষমতায় এলে এবং সকলের জন্য ন্যূনতম আয়ের এই প্রকল্পটি চালু হলে তা এক যুগান্তকারী ঘটনা হতে পারে। তৃণমূল নেতাদের কথায়, এখানেই মমতার ইউএসপি। তিনি ইস্তাহারের প্রতিশ্রুতি রূপায়ণ করেন। ফলে রাজ্যের মানুষ বিশ্বাস করবেন যে মমতাকে ভোট দিয়ে জিতিয়ে আনলে ন্যূনতম মাসিক আয় প্রকল্পটি পাওয়া যাবে।