লালগড়ের সভায় ‘লালদের’ ভোট সবুজে পেতে তাৎপর্যপূর্ণ আহ্বান মমতার

0

লালগড় : ভোটের মুখে কৌশলী চাল মমতার। বুধবার লালগড়ের সভা থেকে বিজেপিকে রুখতে বামেদের আহ্বান জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যা ভোটের মুখে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। এমনকি ভোটের রেজাল্ট নিয়েও জল্পনা কল্পনা শুরু হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, বললেন, “নিজের দল করুন। কিন্তু বিধানসভা নির্বাচনে ভোটটা দিন তৃণমূলকে। তবেই বিজেপিকে রোখা সম্ভব হবে।”

বুধবার লালগড়ে নির্বাচনী জনসভা ছিল তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। ‘বাম দূর্গে’ দাঁড়িয়ে তৃণমূল নেত্রীর বার্তা, “বামপন্থী বন্ধুরা যাঁরা সত্যিই BJP-র বিরুদ্ধে লড়াই করতে চান, তাঁরা ভোটটা আমাদের দিন। সিপিআইএমকে ভোট দিয়ে নিজের ভোট নষ্ট করবেন না।” জনসভা থেকে তৃণমূল নেত্রীর আক্ষেপ, “গত লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি ঝাড়গ্রাম থেকে জিতে গিয়েছে। তবে তাঁরা কোনও কাজ করেননি।”

প্রসঙ্গত গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় থেকে গেরুয়া শিবিরের পালে হাওয়া লেগেছে। সেইসময় ধস নেমেছিল বাম সংগঠনগুলির অন্দরেও। ২০১৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে জেলার ৭৯টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে বিজেপি দখল করেছিল ২৪টি। আসন পেয়েছিল পঞ্চায়েত সমিতি ও জেলা পরিষদেও। এরপর ২০১৯ লোকসভা ভোটে বাজিমাত করে গেরুয়া শিবির। ঝাড়গ্রাম লোকসভা আসনটি তৃণমূলের থেকে ছিনিয়ে নেয় তারা। ফলাফল বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, বিনপুর ছাড়া জেলার বাকি তিনটি বিধানসভা কেন্দ্রেই তৃণমূলকে টেক্কা দিয়েছিল বিজেপি। একমাত্র বিনপুর বিধানসভাতেই তিন হাজারে কিছু বেশি ভোটে পিছিয়ে ছিল গেরুয়া শিবির। আর এই জয়ের পিছনে ছিল বামেদের ভোটব্যাংক। এবার সেই ভোটব্যাংককে পাখির চোখ করতে চাইছে তৃণমূল। তাই পুরনো শত্রুকে কার্যত বন্ধু বানাতে তৎপর হলেন মমতা।