পুরনো বনাম নতুন সেলিব্রিটিদের মধ্যে এবার লড়াই গেরুয়া শিবিরে 

0

কলকাতা: নির্বাচনের বাকি আর মাত্র কদিন, প্রার্থী তালিকা প্রকাশের কার্যসূচি ও ইতিমধ্যে শুরু করে দিয়েছে সব শিবিরই। গেরুয়া শিবিরও তাদের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছে,এবং তাদের ১৩টি কেন্দ্রে এখনও বাকি প্রার্থী নাম ঘোষণা করা।ইতিমধ্যে গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছেন টলিপাড়ার এক ঝাঁক নায়ক নায়িকা। তাদের মধ্যেই অনেকেই আসন্ন নির্বাচনে প্রার্থী হিসাবে লড়ার টিকিটও পেয়েছে দলের তরফে।আবার অপর দিকে বেশ কিছু তারকা যারা বেশ কয়েক বছর আগেই নাম লিখিয়েছেন গেরুয়া শিবিরে তাদের কার্যত এবারে বঞ্চিত করা হয়েছে।

এখনও পর্যন্ত ঘোষিত হওয়া তালিকায় তাদের নাম নেই।খুব স্বাভাবিক ভাবেই তারা তাদের ক্ষোভ উগ্রে দিয়েছে দলের অভ্যন্তরে। তেমনি একজন অভিনেত্রী বিজেপিতে ২০১৯ সালের জুলাই মাসে যুক্ত হওয়া রিমঝিম মিত্র বলেন ‘পার্টিটা মন দিয়ে করেছি।দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছি নিয়মিত ভাবে।নেতৃত্বের কাছ থেকে উৎসাহ পেয়েছি।ফলে প্রতিদান আশা করা কি দোষের! ঠিক এই একই সময় গেরুয়া পতাকা হাতে তুলে নিয়েছিলেন আর এক অভিনেত্রী কাঞ্চনা মৈত্র। একনিষ্ঠ ভাবে তিনিও যুক্ত ছিলেন পার্টির সাথে। তাঁর ও এবার মেলেনি নির্বাচনের টিকিক।কাঞ্চনা হতাশ কণ্ঠে এদিন বলেন ‘পার্টির একনিষ্ঠ কর্মী হিসাবে কাজ করে গেছি। ভবিষ্যতেও করবো,দল হয়তো আমায় টিকিট দেওয়ার যোগ্য মনে করেনি। এ বিষয়ে আমার কি বলার থাকতে পারে! যে সেলিব্রিটিরা লড়ছেন তাদের সকলের জন্য আমার অভিনন্দন রইলো।’

অপর দিকে সদ্য মাস খানেক আগে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখানো একঝাঁক অভিনেতা অভিনেত্রী হিরন,যশ,শ্রাবন্তি,রুদ্রনীল,পায়েল প্রমুখ দের টিকিট পাওয়া কে ভালো চোখে দেখছেন না তাদের সহ যোদ্ধারা। ২০১৪ সালে বিজেপিতে নাম লেখানো অভিনেতা জয় ব্যানার্জীর নাম ও এবার বাদ পড়েছে। ফলে তিনিও ক্ষোভের মুখে বলেন ‘দলে অনেকেই নতুন এসেছেন অবশ্যই তাদের যোগ্য সম্মান দেওয়া উচিত,কিন্তু পুরনোদের কথা ভুলে গেলে চলবে না। প্রার্থী তালিকা দেখে মনে হলো কোথাও মিসক্যালকুলেশন হয়েছে’।

কার্যত বোঝাই যাচ্ছে বিজেপির অভ্যন্তরে তারকা প্রার্থী ,সদস্যদের মধ্যে দ্বন্দ্ব প্রকট হয়ে উঠেছে। এই প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপি সহ সভাপতি জয় প্রকাশ মজুমদার বলেন “কোনো মানুষ যেমন দোষ ত্রুটি মুক্ত হয় না,প্রার্থী তালিকাতেও তেমন দোষ ত্রুটি থাকে। সবাই কে এক সঙ্গে খুশি করা কি ভাবে সম্ভব”! ফলে বোঝাই যাচ্ছে দলীয় নেতৃত্বের এই প্রার্থী তালিকা নিয়ে কোনো বিরূপ প্রতিক্রিয়া নেই।