“পা তুলে তুলে সবাইকে দেখাচ্ছে, বারমুডা পরতে পারেন, তাহলে পরিষ্কার দেখা যায়” মমতাকে অশালীন ভাষায় আক্রমণ দিলীপের

0

পুরুলিয়া: আর মাত্র হাতে গোনা কয়েকটা দিন পরেই বাংলায় শুরু হবে হাই-ভোল্টেজ নির্বাচন। তাই শেষ মুহূর্তে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলি নিজেদের সব টুকু দিয়ে প্রচার চালাচ্ছেন বেশী ভোট পাওয়ার আশায়। সময় ও ভোট যাতে নষ্ট না হয় সেই কারণে নন্দীগ্রামে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আঘাত পাওয়ার পরেই দু দিন বিশ্রাম নিয়েই হুইলচেয়ারে বসেই প্রচার চালাচ্ছেন। তবে মুখ্যমন্ত্রী ভসার ভঙ্গি নিয়েও উঠেছে নানান কথা। এবার তৃণমূল সুপিমোর ভাঙ্গা পা নিয়ে প্রচার ও বসার ভঙ্গি নিয়ে আক্রমণ করতে গিয়ে অত্যন্ত কু-রুচিকর মন্তব্য করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

প্রার্থী না হলেও নিজের দোলের হয়ে জেলায় জেলায় প্রচার চালাচ্ছেন দিলীপ ঘোষ। পুরুলিয়ার বান্দোয়ান বিধানসভার দলীয় প্রার্থী পারসি মুর্মুর হয়ে প্রচারের জন্যই মঙ্গলবার গিয়েছিলেন পুরুলিয়া। সেখান থেকেই মমতাকে কুরুচিকর আক্রমণ করে তিনি বলেছেন, “প্লাস্টার কাটা হয়ে গেল। ফের ব্যান্ডেজ বাধা হয়ে গিয়েছে। আর পা তুলে তুলে সবাইকে দেখাচ্ছে। শাড়ি পড়ে এসে একটা পা ঢাকা। একটা খোলা। এমন শাড়ি পড়তে দেখিনি। যদি পা টা বার করে রাখতে পারেন। তাহলে শাড়ি কেন বারমুডা পরতে পারেন। তাহলে পরিষ্কার দেখা যায়। কত নাটক দেখব আর।” এখানেই শেষ নয় মমতার বিদায় হবে এই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে কটাক্ষ করে বিজেপির রাজ্য সভাপতি বলেছেন, “মেয়ের তো সময় হয়ে গিয়েছে দশ বছর। আর তো রাখা ঠিক হবে না। এবার মেয়ের বিদায় চাই। তাই আমরা বিদায় দেব ঠিক করেছি এবারে। মেয়েকে আর রাখতে চাই না।”

বাংলায় পরিবর্তন হবেই এমনটা উল্লেখ করে নির্বাচনী প্রচারে দিলীপ ঘোষ বলেছেন, “দিদি বলছেন আমি একজন মহিলা। আমাকে ভোট ভিক্ষা দিন। আমি বাংলার মেয়ে। বাবা বাংলার মেয়ে, বাংলার মেয়ে যা দুর্দশা করেছে আর কেউ চাই না তাকে। এবার মেয়ের হাত থেকে মুক্তি চায়।” তৃণমূলের দুয়ারে সরকার কর্মসূচী নিয়ে কটাক্ষ করে তিনি বলেছেন, “দিদি বললেন, দুয়ারে-দুয়ারে সরকার। আমরা বসে আছি ঝাঁটা নিয়ে। কখন সরকার আসছে। সরকার তো এল না। দুয়ারে সরকার হল না। ঠেলা গাড়ির সরকার হয়ে গেল। হুইল চেয়ারের সরকার হয়ে গেল। দিদি বুঝে গিয়েছেন আর জিততে পারবেন না। তাই নাটক করছেন।” এক কথায় যত দিন ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে রাজনৈতিক উত্তেজনার পারদ সেই সঙ্গে ভোট যুদ্ধের সাথে পাল্লা দিয়ে চলছে বাক যুদ্ধ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here