“নির্বাচন কমিশন এখন বিজেপি কমিশন হয়ে গিয়েছে”, দাঁতনের সভা থেকে কমিশনকে তোপ মমতার

0

পশ্চিমমেদিনীপুরঃ  ঘোষণা হয়ে গিয়েছে নির্বাচনের তারিখ। ২৭ মার্চ থেকে শুরু প্রথম দফার ভোটগ্রহন পর্ব। নির্বাচনী প্রচারে ঝড় তুলতে মরিয়া সব রাজনৈতিক দলগুলি। বৃহস্পতিবার নির্বাচনের শেষ প্রচারে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চার জায়গায় জনসভা করছেন। পশ্চিম মেদিনীপুরের দাঁতন তাঁর তৃতীয় গন্তব্যস্থল।
পশ্চিম মেদিনীপুরের দাঁতনের জনসভা থেকে সরাসরি নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে কড়া ভাষায় তোপ দাগলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর অভিযোগ, “বিজেপি-র কথায় আপনারা এখন অফিসারদের বদল করছেন। বিজেপির কথা শুনে আপনারা পদক্ষেপ করছেন। শ্রদ্ধা রেখেই বলছি, আপনারা বিমাতৃতসুলভ আচরণ করছেন। তবে জেনে রাখুন, যাঁদের বদলি করছেন, আর নতুন যাঁরা আসছেন, সবাই আমাদের লোক। এটা আপনারা জানেন না।”
নির্বাচন ঘোষণা হওয়ার পর থেকে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা বিষয়ে দেখভালের দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের। সেইমতো কমিশনের নির্দেশে রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনে বেশ কিছু রদবদল হয়েছে। এ সব স্বাভাবিক ঘটনা হিসেবে মেনে নিলেও, এ সব স্বাভাবিক ঘটনা হিসেবে মেনে নিলেও, সুরজিৎ কর পুরকায়স্থ-সহ সম্প্রতি রাজ্য পুলিশের ডিজি, এডিজি আইনশৃঙ্খলাকে বদলি নিয়ে রাজ্যের রাজনৈতিক মহলে একটা গুঞ্জন তৈরি হয়েছে। এর নেপথ্যে কোনও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য রয়েছে কি না, তা নিয়েও জোর চর্চা চলেছে রাজনৈতিক মহলে । আর দাঁতনের জনসভা থেকে তৃণমূল সুপ্রিমো সম্ভবত সেটাই স্পষ্ট করে দিলেন। তিনি বললেন, “নির্বাচন কমিশন এখন বিজেপি কমিশন হয়ে গিয়েছে। বিজেপির কথা শুনে পদক্ষেপ নিচ্ছে। এর জন্য আমাকে শোকজ করুন, ১০টা চিঠি পাঠান, আমার কিছু যায় আসে না। আমি লড়াই করবই। বিজেপি এখন জনগণের খেলায় হেরে গিয়েছে। তাই অফিসার বদলের খেলা খেলছে। তবে যাঁদের বদলি করছেন, তাঁরা সবাই আরও বেশি করে আমাদের লোক। আর যাঁরা নতুন আসছেন, তাঁদের নিয়েও আমি খুশি, তাঁরাও আমাদের লোক।” এরপর আরও শ্লেষের সুরে তিনি বলেন, ”অফিসার বদলি যতই করো, মাইনে তোমার ৪১২”। একজন মুখ্যমন্ত্রী এভাবে নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে পারে কিনা তা নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই মন্তব্যের পরই জোর জল্পনা শুরু হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here