“বিজেপি ক্ষমতায় এলে ৬ মাসের মধ্যে মানুষ পরিবর্তন বুঝতে পারবে, সোনার বাংলা তৈরি হবে”, মিঠুন চক্রবর্তী

0

পার্থ খাঁড়া, পশ্চিম মেদিনীপুর: রাজ্য জুড়ে চলছে একুশের বিধানসভা নির্বাচন পক্রিয়া। প্রতিটি রাজনৈতিক দলের নেতা-নেত্রীরা জোর-কদমে প্রচারের শেষ পর্ব চালিয়ে যাচ্ছেন। ইতিমধ্যে প্রথম দফার নির্বাচন শেষ হয়েছে। আগামী ১লা এপ্রিল দ্বিতীয় দফার নির্বাচন রাজ্যে। তাই দ্বিতীয় দফার ভোটের আগে এদিন প্রথমে বাঁকুড়ার ইন্দাসে, তারপর পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোণা, কেশপুর, শেষে ডেবরায় রোড শো করলেন মহাগুরু মিঠুন চক্রবর্তী।

মহাগুরু মিঠুন চক্রবর্তীকে একবার দেখার জন্য রাস্তার দুধারে ভিড় জমিয়েছিল সাধারণ মানুষ। বাঁকুড়ার ইন্দাসে নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিয়ে মিঠুন চক্রবর্তী এদিন বলেন, “পরিবর্তন আসছেই।” এরপর ডেবরায় বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষের সমর্থনে জনসভায় বাংলার উন্নয়নের ‘৬ মাসের’ সময়সীমাও নির্দিষ্ট করে দেন ‘মহাগুরু’মিঠুন চক্রবর্তী। তিনি বলেন, “পরিবর্তনের স্লোগান দেওয়া হলেও বিগত ১০ বছরে তা হয়নি। কিন্তু সেই পরিবর্তনের স্লোগান দিয়েই ক্ষমতায় এসেছিল তৃণমূল কংগ্রেস।” রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন, “তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় আসার আগে তিনি শুনতেন, বিরোধীদের ভোট দিলে, জল-বিদ্যুতের লাইন কেটে দেওয়া হবে। ওপরেও পাঠিয়ে দেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হত। সেই পরিস্থিতি এখনও চলছে। তৃণমূলের তরফে বিজেপি সমর্থকদের হুঁশিয়ারি দিয়ে বলা হচ্ছে, বিজেপিকে ভোট দিলে জল-বিদ্যুতের লাইন কেটে দেওয়া হবে। এলাকায় সাধারণ মানুষকে ভয় দেখানো হচ্ছে।”

পাশাপাশি তিনি দাবি করেন যে, বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় এলে ৬ মাসের মধ্যে মানুষ পরিবর্তন বুঝতে পারবে। তিনি বলেন, “সোনার বাংলা তৈরি হবে। হাসপাতালের বেড শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত করা হবে। যার জন্য বাড়তি কোনও পয়সা সাধারণ মানুষকে দিতে হবে না। বিদ্যুতের দাম ১০০ শতাংশ কমানো হবে। বাংলায় শিল্পস্থাপনে উদ্যোগী শিল্পপতিদের পাশে থাকবে সরকার। তোলাবাজির খপ্পরে পড়তে হবে না। একইসঙ্গে ডেবরার সভায় মিঠুন চক্রবর্তী আরও বলেন যে, “আবেদন করার ৯০ দিনের মধ্যে সবকিছুর লাইসেন্স দেওয়া হবে।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here