নিজেকে চকলেট-বার্গার উপহার বিরাটের

0

নয়াদিল্লি: ক্রিকেটারদের ফিটনেসের কথা বলতে গেলে একটাই নাম মাথায় আসে, সেটা হল বিরাট কোহলি। ভারত অধিনায়ক স্বাস্থ্য সচেতন থাকেন সব সময়ই। নিজেকে ফিট রাখতে ডায়েট ও জিম করেন নিয়ম মেনে। কিন্তু যখন শরীরের দরকার হয় ভারী খাবারের, তখন তিনি সেটাই খান।

সম্প্রতি ‘ইন্ডিয়া টুডে’-কে দেওয়া এক সাক্ষ্যাৎকারে বিরাট জানিয়েছেন ২০১৬ সালে মুম্বইয়ে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজের টেস্ট ম্যাচে ২৩৫ রান করার পর তিনি নিজেকে পুরস্কার দিয়েছিলেন। কিন্তু কি ছিল সেই পুরস্কার? বিরাট জানিয়েছেন তিনি ম্যাচের পরে এক প্লেট ভর্তি স্ন্যাক্স, চকোলেট সেক ও চিকেন বার্গার খেয়েছিলেন।

তখনকার ভারতীয় দলের ফিটনেস ট্রেনার শঙ্কর বসুই বিরাটকে এই পরামর্শ দিয়েছিলেন। মুম্বইয়ে গরম ও আর্দ্রতার পরিবেশে মাঠে অনেকক্ষণ ব্যাটিং করে এসে বিরাটের এটাই দরকার ছিল। বিরাট বলেছেন, “আমার শরীরের যদি প্রয়োজন থাকে তাহলে সেই অনুযায়ী শরীরকে একটা দারুণ খাবার দেওয়া যেতেই পারে কিন্তু প্রত্যেকদিন নয়। ২৩৫ রানের বড় স্কোর করার পর আমি একদম নিঃশেষ হয়ে গিয়েছিলাম, প্রায় “ভাজাভাজা” অবস্থা হয়েছিল আমার । আসলে খেলার সময় আমি খুব একটা বেশি ভারী কিছু খাই না।”

তিনি আরও যোগ করেছেন, “ওই সময় আমি কলা, জল আর হালকা চাল ডাল খেয়ে থাকি। তাই বসু স্যার আমাকে বলেছিলেন খেলার শেষে আজকে রাতে তুমি যা চাও তাই খেতে পারো। আমিও একটা চিকেন বার্গার অর্ডার করেছিলাম। সেইদিন আমি আর আটকাতে পারছিলাম না নিজেকে। সঙ্গে রুটিও নিয়েছিলাম। মনে হল ঠিক আছে একটা রুটি আমি খেতেই পারি। কিন্তু দুটো নয়। তারপর আমি এক প্লেট ভাজা খেলাম আর তার সঙ্গে একটা চকলেট শেক। কারণ আমি জানতাম ঐদিন আমার শরীরের ওটা দরকার ছিল।”বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ২-০ সিরিজ শেষ করতে ভারত এখন তৈরি হচ্ছে আগামী ৬ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের জন্য। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ইডেনের ঐতিহাসিক গোলাপি বলের দিন-রাতের টেস্ট ম্যাচে সেঞ্চুরিও করেছিলেন বিরাট।