হতশ্রী খেলায় কোনওমতে পয়েন্ট পেল ইস্টবেঙ্গল

0

ইস্টবেঙ্গল – ১ (আনসুমানা ক্রোমা)

পাঞ্জাব এফসি – ১ (গিরিক খোসলা)

কল্যাণী : শতবর্ষের বছরের ইস্টবেঙ্গলের এমন হাল দেখলে খুব বড় সমর্থকও আশা রাখতে পারবেন না দলের সাফল্যের উপর। কিন্তু বৃহস্পতিবার লিগ টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে থাকা পাঞ্জাব এফসির বিরুদ্ধে পয়েন্ট তুলল লাল-হলুদ শিবির। আর এই ড্রয়ের ফলে একধাপ উঠে নবম স্থানে উঠে এল ইস্টবেঙ্গল।

দিনের শুরুতেই ডিফেন্ডার মার্টি ক্রেসপিকে দল থেকে ছাটাইয়ের ঘোষণা করে দেশীয় ডিফেন্সকে নামায় ইস্টবেঙ্গল। আশির আখতার, মেহতাব সিং, সামাদ আলি মল্লিক ও কমলপ্রীত সিংকে ডিফেন্সে খেলিয়ে ফাটকা খেলাতে চেয়েছেন কোচ মারিও রিভেরা। আর উপরে আনসুমানা ক্রোমা ও মার্কোস এস্পাদাকে খেলিয়ে আক্রমণ বাড়ানোর চেষ্টা চালিয়েছিলেন এই স্প্যানিশ কোচ। আর শুরুতেই তার ফল পেয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। ৯ মিনিটে দূরপাল্লার একটি দুরন্ত গোলে লাল-হলুদ জনতাকে উচ্ছ্বসিত করে ক্রোমা। কিন্তু গোলের পর মাঝমাঠে বল দখলের লড়াইয়ে মেতে ছিল দুই দলই। একাধিকবার দুই দলই তাদের রক্ষণে বেশ কিছু ভুল করেছিল। আর সেই ভুলের মাশুল গুনতে হয়েছে ইস্টবেঙ্গলকে। ৪০ মিনিটে দুরন্ত ভলিতে গোল করে পাঞ্জাবকে সমতায় ফিরিয়ে আনেন গিরিক খোসলা। প্রথমার্ধ এরকমই অবস্থায় খেলা শেষ হয়।

প্রথমার্ধে যদিও কিছুটা ভাল খেলা দেখা গিয়েছিল, দ্বিতীয়ার্ধে ততটাই হতশ্রী খেলা দেখা গেছে ইস্টবেঙ্গলের কাছ থেকে। অন্যদিকে এই পাঞ্জাব এফসি কি করে দ্বিতীয় স্থানে থাকে তা আজকের খেলা দেখে সন্দেহ হবে বটেই। মার্কোস, ক্রোমাদের একের পর এক গোল মিস, কর্ণার ও ফ্রিকিকে একেবারে জঘন্য লাল হলুদ শিবির। এমন খেলা দেখলে স্বয়ং আলেজান্দ্রো মেনেন্ডেস কষ্ট পেতেন তা বলাই বাহুল্য। শেষপর্যন্ত কোনরকমে ম্যাচ ড্র করে ফেরে ইস্টবেঙ্গল। এমন হতশ্রী খেলায় তারা এবারের অবনমন বাঁচাতে পারবে কিনা, তাই নিয়ে বিরাট সন্দেহ ভারতীয় ফুটবল মহলে।