মার্জার নয়, ইনভেস্টর-স্পনসরের মাধ্যমে আইএসএল খেলতে চলেছে ইস্টবেঙ্গল

0

কলকাতা : বুধবার আইএসএল-এর আয়োজক সংস্থা ফুটবল স্পোর্টস ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড (এফএসডিএল) এর একটি বৈঠক হয় আগামী আইএসএল-এর রোডম্যাপ নিয়ে। আর সেই বৈঠকে প্রস্তাব রাখা হয়, আগামী ইন্ডিয়ান সুপার লিগে দলের সংখ্যা বাড়িয়ে ১২-এ আনা হবে। এর ফলে কার্যত পরিষ্কার, আগামী মরশুমে ইস্টবেঙ্গলের আইএসএল খেলতে কোনও বাধা থাকছে না। এমনকি এফএসডিএল এর কাছ থেকে বিড পেপারও তুলে নিয়েছে ইস্টবেঙ্গল। সূত্রের খবর, লকডাউন উঠলেই সেই বিড পেপার জমা দেবেন লাল-হলুদ কর্তারা।

কিন্তু কোটি টাকার প্রশ্ন এটিই, যে ইস্টবেঙ্গল আইএসএল খেলবে কিভাবে? কোনও দলের সাথে মার্জ করে, নাকি ইনভেস্টর ও স্পনসরের সাথে চুক্তি করে? এই বিষয়ে যদি প্রশ্ন আসে, তাহলে নিশ্চিতভাবে বলা যায়, কোনও দলের সাথে মার্জ করবে না ইস্টবেঙ্গল।

পরিষ্কারভাবে যদি এই ১২ দলের প্রস্তাবটি আগামী মাসে এফএসডিএল-এর বৈঠকে চুড়ান্ত হয়, তাহলে মার্জারের কোনও প্রশ্নই আসবে না। এদিকে জামসেদপুর এফসি কিংবা উড়িষ্যা এফসির সাথে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের মার্জারের সম্ভাবনা দীর্ঘদিন ধরেই উঠে এসেছে। কিন্তু টাটা গ্রুপ কোনওমতেই জামসেদপুর এফসির অস্তিত্ব খোয়াতে চাইবে না, কারণ তাদের সমর্থকদের শক্তি। এটিকের থেকে শিক্ষা নিয়ে সেই পথে হাঁটতে চাইছে না জামসেদপুর এফসি। অন্যদিকে উড়িষ্যা এফসির কর্তারা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে তারা কোনও মার্জারের রাস্তায় হাঁটবেন না।

অন্যদিকে বেশ কিছু ইস্টবেঙ্গল কর্তারা জানিয়েছেন, একাধিক ইনভেস্টর ও স্পনসরের অপশন হাতের কাছে রেখেছেন তারা। লকডাউন উঠলেই এই বিষয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে লাল-হলুদ শিবির। গত বছরের কোয়েসের মত ভুল করতে চাইছেন না এবার, তাই ধীরে সুস্থে প্রতিটা পদক্ষেপ ফেলছে ইস্টবেঙ্গল।

তাই নিশ্চিন্ত থাকুন, ইস্টবেঙ্গল আইএসএল খেলছে, এবং সম্পূর্ণ নিজের দমে খেলছে।