মোহনবাগান ছাড়তে কষ্ট হয়েছিল শিল্টনের, নতুন চ্যালেঞ্জের জন্য তৈরি ময়দানের ‘বাজপাখি’

0

কলকাতা : ১৪ বছর সবুজ-মেরুণ জার্সিকে সবচেয়ে উপরে রেখে শেষ প্রহরীর দায়িত্ব সামলেছিলেন শিল্টন পাল। কিন্তু সংযুক্তিকরণের পর শিল্টন পালকে বিদায় জানাল এটিকে-মোহনবাগান। ক্লাবের প্রতি স্নেহ ও ভালোবাসাকে দূরে রেখে কতটা খারাপ লেগেছিল শিল্টনের?

আইলিগের মিডিয়া টিমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ময়দানের বাজপাখি শিল্টন জানান, “খুবই কষ্টের মুহুর্ত ছিল। বুঝতেই পারছেন কতটা আবেগ ছিল ক্লাবটার প্রতি যেখানে আমি ১৪ বছর খেলে এসেছি।”

কিন্তু এবার তার সামনে নতুন চ্যালেঞ্জ। আসন্ন আইলিগ দ্বিতীয় ডিভিশনে ভবানীপুর এফসি এবং আইলিগে চার্চিল ব্রাদার্সের হয়ে মাঠে নামবেন শিল্টন। এই নিয়ে তিনি জানান, “একজন অভিজ্ঞ পেশাদার হিসেবে, আমার উপর আরও বেশি দায়িত্ব বর্তায় ভবানীপুর এফসির প্রতি আর আমি তৈরি নতুন চ্যালেঞ্জ নিতে।”

ভবানীপুর এফসিকে আসন্ন আইলিগের মূলপর্বে তুলতে চান শিল্টন। এই নিয়ে তিনি বলেছেন, “পেশাদার হিসেবে, প্রতিটি ম্যাচ আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ এবং আমার লক্ষ্য হল ভবানীপুর এফসিকে আইলিগের মূলপর্বের যোগ্যতা অর্জন করানো। এখানে কিছু উঠতি প্রতিভাবান যুব ফুটবলারদের সাথে অভিজ্ঞ ফুটবলাররাও রয়েছে এবং এই রসায়ন একেবারে সঠিক। আমরা যদি আমাদের ক্ষমতা অনুযায়ী খেলতে পারি এবং পরিকল্পনাগুলিকে কাজে লাগাই, লক্ষ্যভেদ হবেই।”

বর্তমানে কলকাতা ছেড়ে নিজের বাড়ি হাবরায় চলে এসেছেন শিল্টন। এখানেই শুরু হয়েছিল তার হাতেখড়ি। সেই নিয়ে শিল্টন জানান, “এটাই আমার পিতৃপুরুষদের বাড়ি আর এখানেই আমি বড় হয়েছি। আমি কখনই বিলম্বিত হই না এখানে আসা নিয়ে। হাবরার গোষ্ট পাল ফুটবল অ্যাকাডেমি মাঠ ও সরঞ্জাম দিয়ে আমায় সাহায্য করেছে অনুশীলনের জন্য। আমি আমার কোচ মনোতোষ রায়কে ধন্যবাদ জানাতে চাই যিনি এই লকডাউনে আমায় অনেক সাহায্য করেছেন।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here