এএফসির লাইসেন্সিং নিয়ে পরোক্ষে লাল-হলুদ ক্লাবকর্তাদের হুঁশিয়ারি দিলেন ইনভেস্টরের প্রতিনিধিরা

0

কলকাতা : ইতিমধ্যেই আইএসএল এর জন্য ইস্টবেঙ্গলের প্রস্তুতি জোর কদমে চলছে গোয়াতে। কিন্তু কলকাতায় এখনও যেন ইনভেস্টর ও ক্লাবকর্তাদের মধ্যে চাপা অসন্তোষ লেগেই রয়েছে। গতকাল এএফসির লাইসেন্সিংয়ে ব্যর্থ হয়েছে স্পোর্টিং ক্লাব ইস্টবেঙ্গল, এদিকে স্বচ্ছন্দে পাস মার্কস তুলেছে এটিকে-মোহনবাগান। কিন্তু এএফসির শর্তপূরণে ব্যর্থ কেন হল ইস্টবেঙ্গল?

আদতে এএফসির নিয়ম অনুযায়ী, প্রতিটি ক্লাবকে গত বছরের অডিট রিপোর্ট, অর্থাৎ আয়-ব্যয়ের হিসেব এবং ফুটবলারদের তরফ নো অবজেকশন সার্টিফিকেট, অর্থাৎ ক্লাবের তরফ থেকে কোনওরকম পাওনা নেই, এমন নথি জমা দিতে হয়। কিন্তু ক্লাবকর্তারা এখনও এই দুটি নথিপত্র জমা দেয়নি ইনভেস্টরকে, যার জেরে তারা এএফসিকে এই দুটি নথি পাঠাতে ব্যর্থ হয়। যদিও অতিমারির কথা ভেবে আপাতত কিছুটা ছাড় প্রদান করা হয়েছে, শুধু পরের বছর শর্তপূরণের প্রতিশ্রুতির মুচলেকা প্রদান করলেই আপাতত এই মরশুমে সমস্যা থাকবে না, সেই মতই প্রস্তুতি চলছে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবে।

কিন্তু ক্লাবকর্তাদের এমন অপদার্থতার জেরে ঐতিহ্যশালী ক্লাবের যে এরকম বদনাম হল, এর জন্য এবার পরোক্ষে ক্লাবকর্তাদের হুঁশিয়ারি দিয়ে দিলেন ইনভেস্টর শ্রী সিমেন্ট। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইনভেস্টরদের এক প্রতিনিধি জানিয়েছেন, “আমরা ক্লাবকর্তাদের নতুন করে ডেডলাইন দিয়েছি, যাতে তারা প্রয়োজনীয় কাজগুলি দ্রুত সেরে ফেলতে পারেন। পুজো মরশুম শেষ, তাই আশা করি সব কাজ ঠিকমত হয়ে যাবে।”

এদিকে আইনি বিষয় নিয়েও যেন ক্লাবকর্তারা চিন্তিত থাকেন, সে নিয়েও বার্তা দেন ইনভেস্টরের প্রতিনিধি। তিনি জানিয়েছেন, “আইনগত দিক থেকে ক্লাবকর্তারা এই সমস্ত নথি দিতে বদ্ধপরিকর। আমরা সময় দিয়েছি, তারা কাজ শুরুও করে দিয়েছে। কিন্তু যদি তারা এই বিষয়ে অসহযোগিতা দেখান, তখন আমাদের আইনি পথ বেছে নিয়ে কর্তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে হবে।”

সব মিলিয়ে, ক্লাবকর্তাদের একেবারে লাঠির ডগায় রেখে দিয়েছেন ইনভেস্টর। কোয়েস পর্ব থেকে শিক্ষা নিয়ে একেবারে হোমওয়ার্ক করেই মাঠে নেমেছে শ্রী সিমেন্ট, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here