সদস্যদের স্বার্থ নাকি নিজস্বার্থ? চুক্তি নিয়ে ইনভেস্টরের সাথে অসম লড়াইয়ে ইস্টবেঙ্গল কর্তারা

0

কলকাতা : শনিবার ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের কর্মসমিতির সভায় সদস্যদের নিয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল, যার মাধ্যমে সদস্য ও সমর্থকরা বেশ লাভবান হবেন। কিন্তু সেই সভায় লাল-হলুদ কর্তারা স্পষ্ট জানিয়েছেন, ইনভেস্টর শ্রী সিমেন্টের পেশ করা ডেফিনিটিভ এগ্রিমেন্টে তারা সই করবেন না।

যদিও ইনভেস্টরদের তরফ থেকে বার্তা এসেছিল, সমর্থক ও সদস্যদের নিয়ে নমনীয়তা তারা দেখাবেন এবং সেই মত ফাইনাল চুক্তিপত্রে কিছু বদল আনবেন। কিন্তু ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের এমন মনোভাবের ফলে প্রশ্ন উঠেই গেল, তবে কি সমর্থকদের স্বার্থের বাইরে ব্যক্তিস্বার্থকে প্রাধান্য দিচ্ছেন কর্তারা?

ডেফিনিটিভ এগ্রিমেন্টে সমর্থকদের ইস্যু ছাড়াও ক্ষমতাগত ইস্যু নিয়েও লাল-হলুদ কর্তারা কিছুটা পরোক্ষ ঝামেলা করছিলেন। যদিও ইনভেস্টরদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, দ্রুতই সমস্যা মিটে যাবে। সমর্থকদের নিয়ে কড়া পদক্ষেপ সরিয়ে নেওয়ার চিন্তাভাবনা করেছে শ্রী সিমেন্ট। কিন্তু শনিবার যেভাবে কার্যত হুঙ্কারের ভাষায় এগ্রিমেন্ট সই না করার কথা বলেছেন ইস্টবেঙ্গলের শীর্ষকর্তারা, তাতে শ্রী সিমেন্টের সাথে বড়সড় সংঘাতের পথেই হাঁটতে চাইছেন তারা।

এই এগ্রিমেন্টে সই হলে একপ্রকার ঠুঁটো জগন্নাথের মত অবস্থায় থাকবেন ক্লাবের পুরোনোপন্থী কর্মকর্তারা। কোয়েস পর্ব থেকে শিক্ষা নিয়েই ফাইনাল এগ্রিমেন্ট তৈরি করেছেন শ্রী সিমেন্ট। আর এর ফলে তাদের স্বার্থক্ষুণ্ণ হওয়ার ভয়েই কি সই করতে চাইছেন না কর্তারা? প্রশ্ন কিন্তু উঠছেই। যদিও এই লড়াই একপ্রকার অসম। কারণ শ্রী সিমেন্টের পিছনে রয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং এফএসডিএল এর সমর্থন। সেক্ষেত্রে যদি পরিস্থিতি জটিল হয়, তখন শ্রী সিমেন্টের কাছে একপ্রকার আত্মসমর্পণ করতেই হবে পুরোনোপন্থী ক্লাবকর্তাদের।

এই নিয়ে ইনভেস্টরের এক প্রতিনিধির সাথে কথা বলায় তিনি বলেছেন, “আমরা কর্মকর্তাদের সাথে একসাথে কাজ করতে উদ্যোগী ছিলাম। তবে ক্লাবের উন্নয়নের জন্য আমরা টাকা ঢালব, ওদিকে ওনারা পুরো কর্তৃত্ব নিয়ে থাকবেন, এমনটা তো হয় না। আমরা আপাতত আইএসএল নিয়েই ভাবছি। তবে ক্লাবকর্তাদের আগামী বৃহস্পতিবার অবধি সময় নিয়েছি। সেক্ষেত্রে জটিল পরিস্থিতি ধারণ করলে আমাদের বড় পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হতে হবে। আইনগত ভাবে আমাদের কথাই শুনতে হবে কর্তাদের।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here