ফাইনাল এগ্রিমেন্টে সই না হলে আইনি পথে শ্রী সিমেন্ট, কর্মকর্তাদের আচরণে ক্ষুব্ধ লাল-হলুদ সমর্থকরা

1

কলকাতা : নয়া কর্মসমিতি গঠন হওয়ার পরেই প্রশ্ন এসেছিল, এগ্রিমেন্টে সই হল না এদিকে তিন বছরের জন্য নয়া কর্মসমিতি তৈরি কেন করল ইস্টবেঙ্গল ক্লাব? যে বিষয়টি আবারও চাগাড় দিয়ে উঠে উঠেছে, তা হল ফাইনাল এগ্রিমেন্টে সই। ক্লাবের শীর্ষকর্তা দেবব্রত সরকার এবং পুনর্নিযুক্ত সচিব কল্যাণ মজুমদার স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, ইনভেস্টর শ্রী সিমেন্টের ফাইনাল এগ্রিমেন্টে তারা সই করবেন না। শনিবার সেই নিয়ে আবারও সুর চড়া করল ক্লাব কর্তারা।

এই পরিস্থিতিতে এবার আর চুপ করে থাকবে না ইনভেস্টর পক্ষ। এই বিষয়ে শ্রী সিমেন্টের এই প্রতিনিধির সাথে কথা হলে তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন, এবার আইনি পথেই ক্লাবকর্তাদের বিরুদ্ধে নামবে তারা। এই নিয়ে সেই প্রতিনিধি বলেছেন, “এতদিন আমরা আলাপ আলোচনার মাধ্যমে এই এগ্রিমেন্ট সই করানোর জন্য আবেদন করেছিলাম। বেশ কিছু বদলও করেছিলাম ফাইনাল টার্মশিটে। কিন্তু তাতেও এনাদের অসুবিধা। আমরা প্রচুর অর্থ ইনভেস্ট করে ফেলেছি, ফলে এত সহজে আমরা হাল ছাড়ব না। এই ক্লাবকর্তাদের শিক্ষা দেওয়া দরকার।”

এরপর সেই প্রতিনিধি আরও বলেন, “আপাতত আইএসএল চলায় এবং সামনে রাজ্যে নির্বাচন থাকায় আপাতত কিছুটা সময় দিয়েছি ওনাদের। তাঁর মধ্যে না মানলে আমরা আইনি পথে যেতে বাধ্য হব। ভারতবর্ষের বড় আইনজীবীদের সাথে আমাদের যোগাযোগ রয়েছে। কারণ পূর্বতন টার্মশিটে সই করার দরুণ ওনারা এই এগ্রিমেন্টে সই করতে বাধ্য। আর তা যদি না মানেন, প্রায় ৭০ কোটি টাকার মত ক্ষতিপূরণ দিতে হবে ওনাদের। নিজেদের জন্য পরিস্থিতি নিজেরাই খারাপ করছেন ওনারা।”

এদিকে এই খবর চাউর হতে ক্ষুব্ধ লাল-হলুদ সমর্থকরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক গদ্য ও রচনা তারা নামিয়ে গিয়েছে ক্লাবকর্তাদের এমন আচরণের প্রতি। এদিকে অনলাইন পিটিশনেও সই নেওয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। তবে বেশ কিছু সমর্থক মাঠে নেমে কর্মকর্তাদের শিক্ষা দেওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছেন। ফলে আগামী দিনে আবারও ক্লাবের প্রাচীনপন্থী ক্লাবকর্তারা প্রহারের সম্মুখীন হবেন না, এমন নিশ্চয়তা কিন্তু দেওয়া যাচ্ছে না।

1 COMMENT

  1. কর্মকর্তাদের কপালে শনি নাচ্ছে।।পিটিয়ে চামড়া গোটাবো।।

Comments are closed.