“এই লাল-হলুদ জার্সির মর্ম আমি বুঝি”, ১১ বছর পর ইস্টবেঙ্গলে ফিরে আবেগপ্রবণ ভারতের স্পাইডারম্যান

0

পানাজি, গোয়া : এদিন সরকারিভাবে এসসি ইস্টবেঙ্গল ঘোষণা করল, হায়দ্রাবাদ এফসি থেকে মরশুম শেষ অবধি লোন চুক্তিতে যোগ দিলেন ৩৪ বছরের অভিজ্ঞ বাঙালি গোলকিপার সুব্রত পাল। ১১ বছর পর আবারও ইস্টবেঙ্গলে যোগ দিয়ে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়লেন ভারতীয় ফুটবলের স্পাইডারম্যান।

এদিন এসসি ইস্টবেঙ্গলের ওয়েবসাইটকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সুব্রত পাল বলেছেন, “আমি বোঝাতে পারব না কতটা খুশি ও অভিভূত এসসি ইস্টবেঙ্গলে ফিরে আসতে পেরে। আমি এই জার্সির মর্ম এবং গুরুত্ব আমি বুঝি এবং আমি নিজেকে খুবই ভাগ্যবান মনে করি এসসি ইস্টবেঙ্গলের একটি অংশ হতে পেরে। আমি খুবই অপেক্ষা করে আছি পিচে নামতে এবং তাদের উন্নতিতে সাহায্য করতে। আমি মুখিয়ে রয়েছি আমার সহ খেলোয়াড়দের সাথে আলাপ করতে এবং ক্লাবকে সবরকম ভাবে সাহায্য করতে।”

এদিকে সুব্রত পালকে নিয়ে প্রশংসায় মাতলেন কোচ রবি ফাউলার। লিভারপুলের কিংবদন্তি এই ফুটবলার বলেছেন, “সুব্রত অত্যন্ত অভিজ্ঞ এবং দীর্ঘ সময় ধরে তিন কাঠির নীচে অসাধারণ কাজ করে চলেছেন। ওনার আগমণ আমাদের গোলকিপিং অপশনকে আরও উন্নত করেছে। সুব্রতর অভিজ্ঞতা অন্যান্য কিপারদেরও সাহায্য করবে।”

শেষে দলের গোলকিপার কোচ ববি মিমস প্রশংসা করেছেন পুরোনো এই ছাত্রকে। এর আগে জামসেদপুর এফসিতে একসাথে কাজ করেছেন মিমস ও সুব্রত। এই নিয়ে তিনি জানিয়েছেন, “আমরা জানি ওনার মধ্যে কতটা কোয়ালিটি এবং অভিজ্ঞতা রয়েছে। আমি ওনার সাথে জামসেদপুর এফসিতে কাজ করেছি এবং আমি জানি উনি এই দলে কি আনতে পারেন। তাই আমি আশাবাদী উনি প্রথম একাদশে সুযোগ পাওয়ার জন্য দেবজিতকে ভালোই লড়াই দেবেন।

এরপর তিনি আরও বলেন, “আমি ওনার কর্মক্ষমতা জানি। উনি খুব পরিশ্রম করেন এবং সেটি বাকি গোলকিপারদের অনুপ্রেরণা যোগায়। এতে আমার কাজ সহজ হয়ে যায় যদি গোলকিপাররা কাজ করতে চায়। অন্যদিকে, শঙ্করকে শুভেচ্ছা জানাই। উনিও অনুশীলনে বেশ পরিশ্রম করছেন।”