“জঘন্য রেফারিং কেন শুধু ইস্টবেঙ্গলের সাথেই হয়?” গোয়ার বিরুদ্ধে ড্রয়ের পর ক্ষোভ প্রকাশ ফাউলারের

0

পানাজি, গোয়া : ১০ জনের গোয়াকে পেয়েও হারাতে অক্ষম হল এসসি ইস্টবেঙ্গল। গোটা দ্বিতীয়ার্ধ পুরো দাপিয়ে বেড়ালেও সেই কাঙ্খিত জয়সূচক গোলটিই আসেনি। একের পর এক সহজ সুযোগ মিস, পেনাল্টি মিসের মাঝেও লাল-হলুদ কোচ রবি ফাউলার ফের ক্ষোভ প্রকাশ করলেন ম্যাচের রেফারিং নিয়ে। তিনি জানিয়েছেন, হয়ত ব্রিটিশ বিরোধী বা ইস্টবেঙ্গল বিরোধী হওয়ার দরুণ এমন জঘন্য রেফারিং হচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে।

ম্যাচ পরবর্তী প্রেজেন্টেশনে এসে রবি ফাউলার বলেছেন, “রেফারির পারফর্মেন্স নিয়ে খুবই হতাশ। অত্যন্ত জঘন্য বলেই আমার মনে হয়েছে। যখনই তাদের খেলোয়াড়দের সামনে আমাদের খেলোয়াড়রা এসে পড়ছিল, তখন উনি সিদ্ধান্ত নিচ্ছিলেন। জানি না এটি ব্রিটিশ বিরোধী বা ইস্টবেঙ্গল বিরোধী কোনও বিষয়, কিন্তু আমরা কোনও ধরণের সহায়তা পাই না। আমাদের খেলোয়াড়দের প্রতিনিয়তই খারাপ সিদ্ধান্তের সম্মুখীন হতে হয়।”

রেফারিং নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করলেও ম্যাচের প্রথম মিনিটেই পেনাল্টি পায় স্পোর্টিং ক্লাব ইস্টবেঙ্গল। যদিও রিপ্লে থেকে দেখা যায়, নারায়ণ দাসকে বক্সের একটু আগে ফাউল করা হয়েছিল আর এর জেরে সিদ্ধান্তটি ফ্রি কিক হওয়া উচিত ছিল। রেফারির তরফ থেকে এমন সুবিধা পেয়েও ক্ষুব্ধ ফাউলার। তিনি বলেছেন, “বাকি পাওনা পেনাল্টিগুলি নিয়ে কি বলবেন? আমি এই নিয়ে কোনও বাকবিতন্ডায় যেতে চাই না। অতিরিক্ত সময়ের ক্ষেত্রেও আমরা দেখেছি খেলোয়াড়রা মাটিতে পড়ে যাচ্ছেন অথচ কোনও সময় যোগ দেওয়া হয়নি। আমরা এখন মরশুমের শেষ পর্যায়ে রয়েছি, আর কবে রেফারিরা শিখবেন? প্রতিনিয়ত এই ধরণের ভুল করা উচিত নয়। আমি এই বিষয় সরব ছিলাম। যিনি সব থেকে বেশি জোরে চিৎকার করেন, রেফারি সঙ্গে সঙ্গে তাকে কার্ড দেখিয়ে দেন। হয়ত আমি আমার খেলোয়াড়দের একই কাজ করতে বলব।”

এদিকে ম্যাচ নিয়ে বেশ ইতিবাচক বার্তা দিয়েছেন গ্যাফার। যদিও মহম্মদ রফিককে তোলা নিয়ে নিজের বক্তব্য পেশ করেছেন ফাউলার। আর আগামী ম্যাচগুলিতে জয়ের জন্য ঝাঁপাতে হবে, এও জানিয়েছেন ফাউলার। তিনি বলেছেন, “আমরাই একমাত্র দল ছিলাম যারা জিততে চেয়েছিলাম। আমরা এদের আগেও হারাতে পারতাম। আমরা পিছিয়ে থেকে শুরু করেছি এবং দ্বিতীয়ার্ধের পারফর্মেন্স অসাধারণ ছিল। আমি রফিককে পছন্দ করি কিন্তু কখনও কখনও কোচকে সিদ্ধান্ত নিতে হয় যখন পরিস্থিতি আপনার দিকে যাচ্ছে না। আমরা অনেক সুযোগ পেয়েছি দ্বিতীয়ার্ধে। এখন আমাদের ম্যাচ জিততে শুরু করতে হবে টেবিলের উপরে ওঠার জন্য। গত ৮-৯ ম্যাচে আমরা অনেক ভালো ফুটবল খেলেছি। আমি আমার ছেলেদের প্রতি গর্বিত।”