প্রেম দিবসে বাগান সংসারে ভালোবাসার গন্ধ ছড়ালেন রয় কৃষ্ণা, পজিটিভ-নেগেটিভের হিসেব এল সামনে

0

পানাজি, গোয়া : ক্লাবের অস্তিত্ব নিয়ে যখন সমর্থকরা ক্ষুব্ধ ও বিক্ষোভরত, তখন ভালোবাসার দিনে মেরিনার্সদের সংসারে ফুল ফোটালেন রয় কৃষ্ণা। সবুজ-মেরুণের মসিহা হিসেবে এই নিয়ে কত ম্যাচ জিতিয়ে দিয়েছেন ফিজির এই স্ট্রাইকার, তার হিসেব রাখা মুশকিল হয়ে গিয়েছে।

গতকাল শক্তিশালী জামসেদপুর এফসির বিরুদ্ধে দুর্দান্ত লড়াই চালিয়ে শেষ মুহুর্তে রয় কৃষ্ণার সুযোগসন্ধানী গোলে ম্যাচ জিতে ফেরে এটিকে-মোহনবাগান। আর এর জেরে কাঙ্খিত লক্ষ্য অর্থাৎ লিগ শীর্ষে চলে যায় হাবাস ব্রিগেড। এই ম্যাচ থেকে বেশ কিছু পজিটিভ ও নেগেটিভ এসেছে, তা দেখে নেওয়া যাক।

পজিটিভ :

রয় কৃষ্ণা – সুযোগসন্ধানী এবং পরিশ্রমী – এমন যুগলবন্দীর স্ট্রাইকার খুব কম মেলে। আর এই যুগলবন্দী নিয়েই এটিকে-মোহনবাগানের মসিহা হয়ে উঠেছেন রয় কৃষ্ণা। কার্যত সারা ম্যাচ জুড়ে গোলের জন্য ছটফট করেছেন কৃষ্ণা। আর শেষ মুহুর্তে কার্যত গোল করা খুবই মুশকিল, সেখান থেকে গোল করে নিজের জাত আবারও চিনিয়েছেন কৃষ্ণা।

Image

মনবীর সিং – দুর্দান্তভাবে ডানদিককে সচল রেখেছিলেন এই পাঞ্জাব তনয়। নিজের গতির দারুণ ব্যবহার করেছেন মনবীর। আর এর জেরে রয় কৃষ্ণা বেশ কিছুটা জায়গা পেয়েছেন।

অরিন্দম ভট্টাচার্য – তিনকাঠির নীচে শেষ প্রহরী হিসেবে দারুণভাবে নিজেকে মেলে ধরেছেন অরিন্দম। ডিফেন্সের ভুল সত্ত্বেও একা দাঁড়িয়ে থেকে এটিকে-মোহনবাগানের হয়ে কোনওরকম ভুল করেননি তিনি। ভালস্কিস, মনরয়দের সামনে দেওয়াল হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন অরিন্দম।

নেগেটিভ :

মার্সেলিনহো – গত দুই ম্যাচের দুরন্ত ফর্ম এই ম্যাচে দেখাতে পারেননি এই ব্রাজিলিয়ান। যার জেরে মিডফিল্ডে ক্রিয়েটিভিটির অভাব স্পষ্ট হয়ে উঠছিল। বারংবার আটকে যাচ্ছিলেন মার্সেলিনহো, ফলে আক্রমণ সেভাবে গড়ে উঠছিল না এটিকে-মোহনবাগানের জন্য। ডার্বির আগে মার্সেলিনহোর এই অফ ফর্ম কিছুটা চিন্তায় রাখবে হাবাসকে।

লেনি রডরিগেজ – এফসি গোয়া থেকে আসার পর এটিকে-মোহনবাগানে বেশ মানিয়ে নিয়েছিলেন এই মিডফিল্ডার। কিন্তু গতকাল সেভাবে জ্বলে উঠতে পারেননি লেনি। বারবার বল হারাচ্ছিলেন মিডফিল্ডে, যার জেরে সুযোগ পাচ্ছিলেন ফারুখ, গ্রান্ডেরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here