ডার্বির প্রোমো ভিডিওতে নেই ‘বাগান’, শুধুই ‘এটিকে-মোহন’, স্পনসরের ভুলে ফের মুখ পুড়ল মেরিনার্সদের

0

কলকাতা : মোহনবাগান থেকে এটিকে-মোহনবাগান – এই পরিবর্তনটি পছন্দ নয় অধিকাংশ সবুজ-মেরুণ সমর্থকদের। এটিকে নামটি সরিয়ে দেওয়ার জন্য তারা মরিয়া। এদিকে ক্লাবের এই দীর্ঘ নামের জন্য অনেক সংবাদসংস্থাই সেই নাম অপভ্রংশ বা ছোট করে দিতে বাধ্য হচ্ছে, আর এর জেরে মুখ পুড়ছে মেরিনার্সদের। আর দুই দিন বাদেই আইএসএলে কলকাতা ডার্বির ফিরতি লেগ। তার আগে আবারও এই সমস্যার সম্মুখীন হলেন মেরিনার্সরা।

এবার এই সমস্যা তৈরি করল খোদ এটিকে-মোহনবাগানের একটি কো স্পনসর, যারা আবার বাংলার অন্যতম বড়মাপের একটি নিউজ চ্যানেলও বটে। আসন্ন ডার্বির জন্য একটি প্রোমো ভিডিও লঞ্চ করেছিল তারা। কিন্তু সেই ভিডিওতে একদিকে যেমন শুধু ‘ইস্টবেঙ্গল’ সম্বোধন করা হয়েছিল, সেখানে অন্য দলের নাম হিসেবে শুধু ‘এটিকে-মোহন’ বলা হয়েছে, বাদ পড়েছে ‘বাগান’ শব্দটি। লাইনটি ছিল এই রকম, “চ্যাম্পিয়ন হবে কাদের দল, এটিকে-মোহন নাকি ইস্টবেঙ্গল।”

আর এই নিয়ে প্রচন্ড ক্ষুব্ধ মেরিনার্সরা। বলা বাহুল্য, এই নিউজ চ্যানেল আবার এসসি ইস্টবেঙ্গলেরও কো স্পনসর। সুতরাং এই বিষয়ে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ এনেছেন মেরিনার্সরা। কমেন্ট বক্সে এই নিউজ হাউসকে রিপোর্ট করে দেওয়ার হুমকি দিয়ে বসেছেন অনেকেই। কেউ কেউ আবার এই চ্যানেলটিকে ইস্টবেঙ্গলের চ্যানেল হিসেবে দাবি করে বসেছে।

যদিও বিতর্কটি সামনে আসায় দ্রুতই ভিডিওটি সরিয়ে দেয় সেই টিভি চ্যানেল। তার কয়েক ঘন্টা পর এডিট করে নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই প্রোমো ভিডিও শেয়ার করে তারা। যেখান থেকে দুটি দলের নামই বাদ দেওয়া হয়েছে।

কিন্তু প্রশ্ন উঠেই যাচ্ছে, এভাবে নাম নিয়ে বারংবার অপভ্রংশ কি খুবই প্রয়োজন, যেখানে সেই ক্লাবটির সাথে জড়িয়ে রয়েছে ১৩১ বছরের ঐতিহ্য। ‘এটিকে-মোহন’, ‘এটিকেএম্বি’, ‘এটিকে-বাগান’, ‘এটিকে’ – প্রতিটি অপভ্রংশের ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে, এটিকের নামটি সম্পূর্ণ থাকছে, ভাঙছে কেবল মোহনবাগানের এই ঐতিহ্যশালী নামটি। এরপরেও কি সব সহ্য করবেন কর্মকর্তারা? প্রশ্ন উঠছেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here