প্রথম দফার ফলাফল দেখে এবার ভ্যাকসিন নেবেন মোদী ও মুখ্যমন্ত্রীরা

0

নয়াদিল্লি: অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে গত ১৬ জানুয়ারি থেকে সারা দেশে কোভিড -১৯ টিকাদান অভিযান শুরু হয়েছিল। উদ্বোধনী দিনে প্রতিটি অধিবেশনে প্রায় ১০০ জন সুবিধাভোগীকে টিকা দেওয়া হয়। এবার দ্বিতীয় দফায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং মুখ্যমন্ত্রীদের কোভিড -১৯ এর টিকা দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রীদের বৈঠকে বলেছিলেন যে অন্যান্য রাজনীতিবিদদের, যাদের বয়স পঞ্চাশেরও বেশি তারা আগামী দফায় টিকা নেবেন।

পুলিশ, সশস্ত্র বাহিনী এবং পৌরকর্মীদের মতো স্বাস্থ্যসেবক ও সম্মুখ সারির কর্মীদের পরে তৃতীয় দফায় টিকা দেওয়া হতে পারে সম্ভবত ৫০ বছরের বেশি বয়সের লোক এবং তারপরে যারা ৫০ বছরের কম বয়সী কিন্তু কো-মর্বিডিটিতে ভুগছেন। কোভ্যাক্সিন প্রয়োগের শুরু থেকে তৃতীয় দিনের হিসাবে ৩.৮ লক্ষ মানুষকে টিকা দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে এখনও পর্যন্ত ৫৮০ জনের শরীরে কোভ্যাক্সিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। সাত জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুই জনের মৃত্যু হয়েছে।

তবে সোমবার কেন্দ্রীয় সরকারের তথ্যানুসারে জানা গিয়েছে মৃত্যু কোভ্যাক্সিনের কারণে হয়নি। ভারত বায়োটেকের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘‘সামান্য একটি ঝুঁকি থাকছে ভারত বায়োটেকের টিকায়, যেটিতে অ্যালার্জি দেখা দিতে পারে।’’ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হতে পারে , গলা বা মুখ ফুলে যাওয়া, র‌্যাশ, ঝিমুনি ও দুর্বলতা দেখা দিতে পারে। এছাড়াও অন্তঃস্বত্তা মহিলাদেরও কোভ্যাক্সিন নেওয়া ঠিক হবে না বলে জানিয়েছে বায়টেক সংস্থা।