মেকি দেশ প্রেম দেখাছে রাজনৈতিক দল ও সংগঠন দাবি স্থানীয়দের

0

নিজস্ব প্রতিনিধি, পশ্চিম মেদিনীপুর: বিভিন্ন স্কুল, রাজনৈতিক দল ও সংগঠনের পক্ষ থেকে ১৫ আগস্টে ঘটা করে মাল্যদান করা হয়েছিল খাকুড়দার বিশ্রামাগার সংলগ্ন হেমচন্দ্র কানুনগো মূর্তিতে। তারপর কেটে গিয়েছে তিনদিন৷ রোদ জল বৃষ্টিতে ফুল গুলিতে পচন ধরেছে৷ সেই পচা ফুল শোভা পাচ্ছে মূর্তির গলায়।

সেই সঙ্গে মূর্তির চারিদিকে ১৫ আগস্টে দড়িতে লাগানো হয়েছিল কিছু কাগজের জাতীয় পতাকা। সেগুলিও খুলে খুলে চারিদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ছে। ভ্রুক্ষেপ নেই কারোর। যেই সমাজ সচেতন মানুষেরা মূর্তিটিতে মাল্যদান করেছিলেন তারাই বা আজ অযত্ন করল কেন মূর্তি এবং জাতীয় পতাকাকে প্রশ্ন সাধারণ মানুষের?

গত কয়েকদিন আগে বেলদার বিডি অফিস সংলগ্ন স্থানে এই হেমচন্দ্র কানুনগোর একটি মূর্তি উন্মোচন হয়েছিল৷ ঘটা করে বেলদার মূর্তি সংরক্ষণ কমিটির পক্ষ থেকে এই মূর্তি উন্মোচন করেছিল। বেলদাতে যেমন ঘটা করে মূর্তি উন্মোচন হয়েছিল ঠিক একইভাবে ১৫ আগস্টে ঘটা করে মাল্যদান করা হয়েছিল৷

তবে আজ অযত্ন কেন তাই এখন প্রশ্নচিহ্নের মুখে? কবে জাগবে সচেতনতাবোধ? পরিবর্তন হবে মেকি দেশ প্রেমের? এই সব প্রশ্ন ঘুরছে স্থানীয় বাসিন্দাদের মুখে মুখে৷ মূর্তিটি যেখানে স্থাপন হয়েছে সেই এলাকাতেই হেমচন্দ্র কানুনগো জন্ম। তার জন্যই এলাকার নাম হেমচন্দ্র। আর সেখানেই তার মূর্তিকে নিয়ে এই অবহেলা।