“আমপানে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষদের সহায়তার জন্য পুরোপুরি কেন্দ্র সরকার রাজ্য সরকারের পাশে দাঁড়ায়নি”, কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ তৃণমূলের

0
mamata-modi

কৌশিক সালুই, বীরভূম : মহামারী ও সংকটের সময় বিজেপির বিরুদ্ধে নোংরা রাজনীতি করার অভিযোগ নিয়ে সরব তৃণমূল কংগ্রেস। বীরভূমের সাঁইথিয়া বিধানসভার বিধায়ক নীলাবতী সাহা এবং সিউড়ির বিধায়ক অশোক চট্টোপাধ্যায় সাংবাদিক সোমবার সম্মেলন করে রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপি ও কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে করোনা ভাইরাস এবং আমপান পরবর্তী বাংলার অবস্থা নিয়ে একযোগে তোপ দাগলেন। পাশাপাশি সংকীর্ণ রাজনীতি ছেড়ে দিয়ে বিজেপি যদি মানুষের সহায়তায় কাজ করতে যায় তৃণমূলের সঙ্গে তাতে আপত্তি থাকবে না শাসক দলের বলে দাবি।সাঁইথিয়ার বিধায়ক এবং সিউড়ির বিধায়ক বলেন, “করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি এবং আমফান সুপার সাইক্লোনের পর বাংলার অবস্থা নিয়ে জঘন্য রাজনীতিতে নেমেছে বিজেপি। এই সময় সবার উচিত একে অপরের পাশে থেকে সাহায্য করা। মহামারী এবং প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সময় পশ্চিমবঙ্গের বিরোধী দল বিজেপি এবং কেন্দ্র সরকার সেটা না করে ঘৃণ্য রাজনীতি শুরু করেছে। বিভিন্ন ধরনের মিথ্যাচার এবং বিভ্রান্তিমূলক বিষয় সাধারণ মানুষের মধ্যে প্রচার করার চেষ্টা করছে তারা। যদিও সেগুলো ঠিক নয় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে পুলিশ ও প্রশাসন দলমত নির্বিশেষে লকডাউন পালন করতে বাধ্য করেছে। কেন্দ্র সরকার বাংলার মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলেছে। করোনা ভাইরাস এর পরীক্ষার জন্য ত্রুটিপূর্ণ কিট পাঠিয়েছিল এ রাজ্যে। মহারাষ্ট্র, দিল্লি, গুজরাট, মধ্যপ্রদেশ প্রভৃতি রাজ্যগুলোর করোনাভাইরাস পরিস্থিতি ভয়াবহ। সেখানে পশ্চিমবাংলার অবস্থা অনেক ভালো। গুজরাট উচ্চ আদালতের ডিভিশন বেঞ্চের বিচারক সেখানকার সরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। তার পাল্টা হিসেবে সেখানকার রাজ্য সরকার সেই ডিভিশন বেঞ্চের বিচারকদের সরিয়ে দিয়েছেন। আর পশ্চিমবাংলায় বিজেপি নানা ধরনের মিথ্যাচার করছে। আমপান সুপার সাইক্লোন এ ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের সহায়তার জন্য পুরোপুরি কেন্দ্র সরকার রাজ্য সরকারের পাশে দাঁড়ায়নি। আর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার সাধ্যমত বাংলার মানুষের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন”।

এছাড়া বিধায়ক অশোক চট্টোপাধ্যায় আরও বলেন, “বিজেপি যদি সংকীর্ণ রাজনীতি ছেড়ে বাংলার অসহায় মানুষদের জন্য ভালো কিছু কাজ করার মানসিকতা থাকে তাহলে তৃণমূল কংগ্রেসের সাহায্য করুক তারা তাতে কোনো আপত্তি থাকবে না তৃণমূলের”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here