“করোনায় বাংলাকে কোণঠাসা করছে বিজেপি”, দাবি রাজ্যের মন্ত্রীর

0

পার্থ খাঁড়া, পশ্চিম মেদিনীপুর : একদিকে করোনা একদিকে আমফান এই উভয় সঙ্কটের মধ্যে পড়ে মানুষ বিপর্যস্ত ও দুর্দশাগ্রস্ত। এই উভয় সঙ্কটে যখন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বাংলার মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তখন সামাজিক মাধ্যমে বিজেপি বাংলাকে কোণঠাসা করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করলেন রাজ্যের মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র।

সোমবার পিংলার কিষান মান্ডিতে নিজের বিধানসভা এলাকায় বিজেপির অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জনস্বাস্থ্য কারিগরি ও পরিবেশ দপ্তরের মন্ত্রী জানান, “বিজেপির মতো একটা সাম্প্রদায়িক দল ও তাদের প্রতিনিধিরা জানেন না অতিমারীর সময়ে, প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় কিভাবে দুর্ভোগে পড়া মানুষের পাশে দাঁড়াতে হয়।”

পাশাপাশি তিনি বলেন, “তাই আমফানের জেরে যখন রাজ্যের ৯টি জেলার মানুষ দুর্ভোগের মধ্যে থাকেন তখন বিজেপি নেতারা  তেলেনিপাড়া নিয়ে ভুয়ো ভিডিও স্যোশাল মিডিয়ায় পোস্ট করতে ব্যস্ত থাকেন। সামাজিক মাধ্যম ও কিছু সংবাদ মাধ্যমকে হাতিয়ার করে বিজেপি নেতা কর্মীরা ব্যস্ত থাকছেন বিভ্রান্ত ছড়ানোর জন্য। বাংলাকে অপমানিত করার জন্য। বাংলাকে ছোটো করে দেখানোর জন্য।”

মন্ত্রীর কথায়, “তাঁরা আসলে বাংলার মানুষকে অপমান করছেন। মানুষ সব দেখছেন। তাঁরাই ঠিক সময়ে এর জবাব দেবেন।  যাঁরা দুর্যোগের সময়ে মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে মিথ্যে প্রচার করতে ব্যস্ত থাকেন তাঁরা যে মানুষের উন্নয়নের কাজে লাগবেন না তাও মানুষ বুঝছেন।

অপরিকল্পিত ভাবে লকডাউন আর এর জেরে পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশা নিয়ে কেন্দ্র সরকারের সমালোচনা করে তিনি জানান, “লক্ষ লক্ষ মানুষ যাঁরা এদেশের নাগরিক তাঁদেরকে এভাবে দুর্দশার মধ্যে ঠেলে দেওয়ার জন্য একবারও ভুল স্বীকার করেনি কেন্দ্র সরকার। আমফানের ক্ষয়ক্ষতি নিজের চোখে দেখার পর প্রধানমন্ত্রী বাংলার জন্য দিয়েছেন ১ হাজার কোটি টাকা। আর মুখ্যমন্ত্রী ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য খরচ করেছেন ৬২৫০ কোটি টাকা।”

করোনা অতিমারীতে বাংলা সতর্ক ও সজাগ থেকে মোকাবিলা করছে এজন্য অন্য রাজ্যের তুলনায় ভালো অবস্থায় রয়েছে বলে তিনি দাবি করেন। তথ্য তুলে ধরে জানান, বাংলায় প্রতি দশ লাখে ৯৫৫৬ জনের করোনা পরীক্ষা হচ্ছে। দেশে প্রতি দশ লাখে ২৭৮৫ জনের পরীক্ষা করা হচ্ছে । বাংলায় আক্রান্তের সংখ্যা প্রতি দশ লাখে ৭৪.৮% । আর সারাদেশে ১৬৭% ।

মন্ত্রীর অভিযোগ বাংলা যাতে সহজে করোনার সঙ্গে জুঝে উঠতে না পারেন এজন্য ত্রুটিপূর্ণ কিট পাঠানো হয়েছে। তিনি বলেন,  “কেন্দ্রের দল ক্ষয়ক্ষতি খতিয়ে দেখেছেন। রাজ্যের পক্ষ থেকে ১ লক্ষ ২ হাজার ৪৪২ কোটি টাকার হিসেব দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্র সরকার কতটা কি দেবেন তা তাঁরাই জানেন। অথচ ইতিমধ্যেই বিজেপি নেতারা আমফানের ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে বাংলাকে কটাক্ষ করছেন। যাঁরা একটাও ত্রাণ শিবির করেননি, মানুষকে ত্রাণ দেননি, লোনা জলে আটকে থাকা মানুষের কষ্ট, দুর্ভোগ দেখেননি তাঁদের কাছে এর থেকে বেশি কিছু আশাও করেননা বাংলার মানুষ।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here