ইনকাম সার্টিফিকেট নিতে পৌরসভার আধিকারিকদের বিরুদ্ধে প্রতিদিন হয়রানির অভিযোগ তুলল বাসিন্দারা

0

পার্থ খাঁড়া, মেদিনীপুর: একটা ইনকাম সার্টিফিকেটের জন্য দুপুর ১ টা থেকে সন্ধ্যে ৬ টা পর্যন্ত দাঁড়িয়ে আছেন এক আধ জন নয়, প্রায় ৩০-৪০ জন। শহরবাসী তথা পৌরসভার বাসিন্দাদের অভিযোগ সামান্য একটা সার্টিফিকেটের জন্য প্রতিদিন এভাবেই হয়রান হতে হয় প্রতিদিনই। পৌরসভার আধিকারিকদের দিকে উঠছে এই অভিযোগের তীর।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬ টা নাগাদ হঠাৎ পৌরসভায় পৌঁছে, ভিড়-ভাট্টা আর চেঁচামেচি শুনে খোঁজ নেন, মেদিনীপুর পৌরসভার চার সদস্যের পৌর প্রশাসকমন্ডলীর নব নিযুক্ত সদস্য নির্মাল্য চক্রবর্তী। ভুক্তভোগী মানুষজন তাঁর কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, “দুপুর একটা-দেড়টা থেকে লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে আছি, আধিকারিকদের কোনো হেলদোল নেই।” এই ঘটনার পরেই এক্সিকিউটিভ সহ কর্মীদের কাছে এত দেরি হওয়ার কারণ সম্পর্কে জানতে চান নির্মাল্য বাবু। নির্মাল্য চক্রবর্তীর হস্তক্ষেপের পরই, দ্রুততার সঙ্গে কাজ শেষ করে সার্টিফিকেট রেডি করা হয়।

বিদায়ী কাউন্সিলর নির্মাল্য চক্রবর্তী নিজে দাঁড়িয়ে থেকে মানুষজনের হাতে শংসাপত্র তুলে দেন। সার্টিফিকেট হাতে পাওয়ার পর এক ব্যক্তি বলেন, “নির্মাল্য বাবু এসে উদ্যোগ নেওয়ার পর প্রায় পাঁচ ঘণ্টা পর, সন্ধ্যা সাড়ে ছ’টা নাগাদ সার্টিফিকেট পেলাম।” প্রসঙ্গত, গত ৭ অগাস্ট মেদিনীপুর পৌরসভার অস্থায়ী কর্মীরা বিভিন্ন দাবি-দাওয়া নিয়ে কর্মবিরতিরও ডাক দিয়েছিলেন। এই ঘটনা নিয়েও নির্মাল্য বাবু গত ১২ আগস্ট অস্থায়ী কর্মীদের সাথে কথা বলেন এবং তাদের দাবি-দাওয়া সম্পর্কে আশ্বাস দিয়ে কর্মবিরতি সম্পূর্ণভাবে উঠে যাওয়ার ক্ষেত্রে উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

বৃহস্পতিবার পৌর বাসিন্দাদের দীর্ঘদিনের হয়রানির কথা ভেবে তিনি জানান ছুটির দিন বাদ দিয়ে প্রতিদিনই বিকেল ৪ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত ইনকাম সার্টিফিকেট দেওয়া হবে এবং এই বিষয়টি তিনি নিজে দাঁড়িয়ে থেকে সমস্ত কাজ সম্পন্ন করবেন।