জমি দখলকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা, তিন গৃহবধূকে মারধরের অভিযোগ উঠল তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে

0

পার্থ খাঁড়া, মেদিনীপুর: নিম্ন বর্গের একটি পরিবারকে তাদের দখলি জমি থেকে উৎখাতের চেষ্টার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোয় তিন গৃহবধূকে মেরে মাটিতে শুইয়ে দিল এক তৃনমূল নেতা। এই ঘটনার পরেই উত্তেজিত ও ক্ষুব্ধ গ্রসমবাসীদের হাতে ওই নেতা বেধড়ক মার খেয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর গড়বেতা থানা এলাকায়। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে এই জমি নিয়ে দীর্ঘদিনের বিরোধ চলছিলওই তৃনমূল নেতা এবং একটি পরিবারের মধ্যে।

বেজ পরিবার তাঁর পরিবারের জমি জোর করে দখলে রেখেছে বলেই অভিযোগ করেছেন স্থানীয় তৃনমূল নেতা শিবনাথ পন্ডিত।অন্যদিকে বেজ পরিবারে দাবি করেছে যে ওই জমি সরকারের খাস জমি যা তাঁদের বন্টন করে দেওয়া হয়েছে। এমনকি ওই জমি কয়েক বছর ধরে চাষ করে আসছে বেজ পরিবার। জমি নিয়ে সমস্যা মেটানোর জন্য বহুবার দুই পরিবারকে নিয়ে গ্রামে বসা হলেও কোন সমাধান হয়নি। এদিন বহিরাগত কিছু দুস্কৃতিকে জোগাড় করে জোর করে জমি দখল করতে যায় শিবনাথ পন্ডিত ও তার পরিবারের লোকেরা এমনটাই অভিযোগ করেছে বেজ পরিবার। সশস্ত্র দুস্কৃতিদের সামনে দাঁড়াতে না পেরে বেজ পরিবারের পুরুষ সদস্যরা পুলিশের সাহায্য নিতে থানার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। অন্যদিকে বাড়িতে পুরুষ সদস্যদের অনুপস্থিতিতে জমি দখল হয়ে যাচ্ছে দেখে পরিবারের গৃহবধূরা এগিয়ে যায়।

শিবনাথ পন্ডিত আগে ভাগেই রাস্তার ওপরেই মোটা বাঁশ নিয়ে মহিলাদের উপর ঝাঁপিয়ে পরে যাতে জমির কাছে পৌঁছাতে না পারে বলে অভিযোগ মহিলারাদের। তৃণমূলের লাঠির আঘাতে একে একে লুটিয়ে পড়েন লক্ষ্মী বেজ, তাপসী বেজ,ময়না বেজ নামে তিন মহিলা। এই ঘটনা দেখতে পেয়েই উত্তেজিত হয়ে ওঠে গ্রামের কিছু যুবক। তারাও লাঠি নিয়ে এগিয়ে আসলে শিবনাথ রক্ষা করতে ছুটে আসে তার সঙ্গীরা। এরপরই ক্ষেপে যায় গ্রামের অন্য লোকেরাও। বেগতিক দেখেই এলাকা থেকে চম্পট দেয় তারা। শিবনাথ ও তার এক সঙ্গিকে ঘিরে বেধড়ক মারে গ্রামবাসীরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পুলিশ।

পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহত পাঁচ জনকে গড়বেতা গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গড়বেতা থানায় একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে দুই পক্ষই। অভিযোগ পাওয়ার পর গড়বেতা থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা রয়েছে ধাদিকা এলাকায়  ।