বাংলার মানুষ একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বিভেদ সৃষ্টিকারী বিজেপিকে পর্যুদস্ত করবে: চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য

0
file pic

নিজস্ব প্রতিনিধি, বারাসাত: কেন্দ্রীয় সরকারের জনবিরোধী নীতি, বেসরকারিকরণ, বৈষম্য, প্রাপ্য অর্থ না দেওয়া প্রভৃতির বিরুদ্ধে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের সভানেত্রী তথা বাংলার গর্ব মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে বারাসাত কাছারি ময়দানে জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে অবস্থান-বিক্ষোভ করা হয়।

অবস্থান-বিক্ষোভে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী তথা মহিলা মোর্চা সভানেত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, মধ্যমগ্রাম বিধানসভার বিধায়ক রথীন ঘোষ, ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য, ছাত্র পরিষদের জেলা সভাপতি বাণীব্রত, নৈহাটির বিধায়ক পার্থ ভৌমিক, অশোকনগরের বিধায়ক ধীমান রায়, জেলা পরিষদের পূর্ত ও পরিবহন কর্মাধ্যক্ষ নারায়ণ গোস্বামী, জেলা পরিষদের বন ও ভূমি স্থায়ী সমিতির কর্মাধ্যক্ষ তথা বিশিষ্ট শিক্ষক নেতা এ.কে.এম ফারহাদ, বারাসাত টাউন তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তথা বারাসাত পৌরসভার মুখ্য প্রশাসক অশনি মুখার্জি, বারাসাত পৌরসভার চেয়ারম্যান সুনীল মুখার্জি, মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি কেয়া দাস সহ জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃবৃন্দ।বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি ক্ষোভ উগরে দেন রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, “বাংলার উন্নয়নের কান্ডারী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উন্নয়নকে যখন ত্বরান্বিত করে চলেছে তখন রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করতে না পেরে রাজ্যের সঙ্গে বৈষম্যমূলক আচরণ করছে কেন্দ্রের জনবিরোধী মোদি সরকার।” বাংলার মানুষ একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বিভেদ সৃষ্টিকারী বিজেপিকে পর্যুদস্ত করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

বিধায়ক রথীন ঘোষ বলেন, “রাজ্যে তৃণমূল সরকার যেভাবে চলছে তা দেশের কাছে দৃষ্টান্ত স্বরূপ কেন্দ্রের বিজেপি সরকার হিংসা করে আমাদের রাজ্যের প্রতি বঞ্চনা সৃষ্টি করে চলেছে যা যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো পরিপন্থী। আমরা চাই কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের প্রাপ্য পাওনা সঠিকভাবে বুঝিয়ে দিক।” শিক্ষক নেতা একেএম ফারহাদ সাহেব বলেন, “আমাদের দলনেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় ও জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের নির্দেশে আজকের অবস্থান-বিক্ষোভ থেকে কেন্দ্রের জনবিরোধী সরকারের প্রতি আমাদের অনাস্থা প্রকাশিত হচ্ছে। আমাদের জনমোহিনী জননেত্রী যেভাবে করোনা পরিস্থিতি এবং আমফান মোকাবিলা করে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে তা নজিরবিহীন। আমাদের দাবি কেন্দ্রের জনবিরোধী দাঙ্গাবাজ মোদি সরকারের বিরুদ্ধে তারা যে বৈষম্যমূলক আচরণ করছে রাজ্যের প্রতি তা কখনোই মেনে নেওয়া যায় না। উন্নয়নের কান্ডারী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে কাজ করে চলেছেন তা চলতেই থাকবে কোন বিভেদ সৃষ্টিকারী শক্তি পরাস্ত করতে পারবে না। আজকের সভা থেকে সামগ্রিকভাবে রাজ্যের প্রত্যেকটি জেলা থেকে দেশের জনবিরোধী সরকারের প্রতি তৃণমূল কংগ্রেস ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করে চলেছে যা সাধারণ মানুষের জন্য।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here