“যে এলাকায় ভোট পায়নি সে এলাকায় কোনো উন্নয়নমূলক কাজ হবে না,” ফের বিতর্কিত মন্তব্য অনুব্রতর

0

কৌশিক সালুই, বীরভূম: ফের বে-লাগাম অনুব্রত মণ্ডল। যে এলাকাতে থেকে ভোট পাওয়া যায়নি সে এলাকায় কোনো উন্নয়নমূলক কাজ করা যাবে না। মঙ্গলবার বীরভূমের দুবরাজপুর শহরের রবীন্দ্রসদনে বুথ কর্মী সম্মেলনে এরকমই ফতেয়া জারি করলেন বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি। তাঁর এই বক্তব্যকে কড়া ভাষায় নিন্দা করেছে প্রধান বিরোধী দল বিজেপি।

বিধানসভা নির্বাচন আর কয়েক মাস মাত্র বাকি। তার আগেই ঘর গোছাতে শুরু করেছে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। বিগত লোকসভা নির্বাচনে জেলার বেশ কয়েকটি বিধানসভা এবং বহু হিন্দু অধ্যুষিত এলাকায় বিজেপি ব্যাপক ভোটে লিড পেয়েছিল। সেই সমস্ত এলাকার সাংগঠনিক ফাঁকফোকর মেরামত করতে অঞ্চল ওয়ারী বুথ কর্মী সম্মেলন চলছে তাদের। এদিন দুবরাজপুর বিধানসভার খয়রাশোল ব্লকের নাগরাকোন্দা বুথের বিগত লোকসভা নির্বাচনের বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাপ্ত ভোট নিয়ে ৫৬ নম্বর বুথ সভাপতি চন্দ্রশেখর চন্দ্রশেখর বাগদির সঙ্গে কথোপকথনের সময় তিনি নির্দেশ দেন বুধবার থেকে কোনো উন্নয়নমূলক কাজ করা যাবে না ওখানে। ওই নির্বাচনে বিজেপি ৪৫১ টি এবং তৃণমূল কংগ্রেস ২১৬ টি ভোট পেয়েছিল। বিশেষ করে মুখার্জি পাড়ার জন্য ওই পরিমাণ ভোটের হয়েছিল। অর্থাৎ সংশ্লিষ্ট বুক থেকে বিজেপি ২৩৫ ভোটের লিড পেয়েছিল।

অনুব্রত মন্ডল প্রশ্ন করেন, “কোন পাড়ায় ভোট পায়নি? কোন পাড়া থেকে ভোট খারাপ হয়েছে।” বুথ সভাপতি বলেন ভোট খারাপ হয়েছে মুখার্জি পাড়া থেকে। তার উত্তরে অনুব্রত মণ্ডল বলেন,”ওই পাড়ায় কাল থেকে কাজ বন্ধ রাখুন কোন কাজ করবেন না। দেখি বিজেপি কাজ করে দেয় কিনা উন্নয়ন করে দেয় কি না অন্যায় বলছি?” অনুব্রত মণ্ডল আরও বলেন, “দেখি দিল্লি থেকে এতে কাজ করে দেয় কিনা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কাজ করেননি? মমতা ব্যানার্জি উন্নয়ন করেননি? তাতে বিবেকে লাগলো না? বিবেক বলে কি কোন জিনিস নেই? আর যদি কামু আমার উপকার করে থাকে কাল কামুকে ভুলে যাব? কাল যদি শ্যামল উপকার করার শ্যামলকে ভুলে যাব। কাঞ্চন যদি উপকার করে কাঞ্চনকে ভুলে যাব। এটা কি নীতি। তার পরেও বলবেন কাজ করতে। তারপরেও বলবেন রাস্তা হয়নি। তারপরেও বলবেন পানীয় জলের কল নাই। আমরা তো কাজ করিনা। আমরা পানীয় জলের ব্যবস্থা করব। তবে কে ভোট দিল না দিল পানীয় জলের ব্যবস্থা করে দাও।” .

বীরভূম জেলা বিজেপি সভাপতি শ্যামাপদ মন্ডল বলেন, “কেন্দ্র সরকার, রাজ্য সরকারকে উন্নয়নের জন্য যে টাকা বরাদ্দ করে সেটা সাধারণ মানুষের। সেটা কারোর ব্যক্তিগত নয়। যে এলাকায় ভোট পায়নি সে এলাকায় কোনো উন্নয়নমূলক কাজ হবে না কাজ বন্ধ করা হবে এ ধরনের মন্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here