মুকুলের অভাব বোধ করছে তৃণমূল, বিজেপি নেতা হলেও সুর নরম শাসক দলের

0

কলকাতা: বাংলার রাজনীতিতে এখন সব দলের একমাত্র লক্ষ্য ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচন। লড়াইয়ে রয়েছেন প্রধানত রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল ও গেরুয়া শিবির বিজেপি। তবে রাজ্যের রাজনীতিতে মুকুল রায়কে নিয়ে একাধিকবার ধোঁয়াশা দেখা গিয়েছিল, তাঁকে নিয়ে জল্পনা চলছিল রাজনৈতিক মহলে। রাজ্যের রাজনীতিতে জোর গুঞ্জন চলছিল তিনি নাকি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি আর বিজেপির রাজ্য সদর দফতরে যাবেন না।

মুকুল রায়কে নিয়ে বিজেপির অন্দরে তর্ক বিতর্ক অব্যাহত ছিল। তৃণমূলের বিরুদ্ধে কোনও মন্তব্যও করতে দেখা যায় না তাঁকে। সেই কারণেই সকলে মনে করছিলেন বিজেপি ছেড়ে আবারও মমতার ছায়ায় ফিরতে চলেছেন তিনি। তবে রাজনৈতিক বুদ্ধিতে বরাবরই এগিয়ে বাংলার চাণক্য। সম্প্রতি তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনের মামলায় চার্জশিটে বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকারের নাম থাকলেও, মুকুল রায়ের নাম অভিযুক্ত হিসেবে রাখা হয়নি। তাঁকে রাখা হয়েছে সন্দেহভাজন হিসেবে।

রাজনীতির ময়দানে লড়াইতে নেমে তৃণমূল বুঝতে পারছে মুকুল রায় কত বড় ভূমিকা পালন করতেন দলের হয়ে, তাঁর অভাব স্পষ্ট। রাজনৈতিক মহলের দাবি, তৃণমূল মুকুলের অভাব টের পেতেই তাঁর প্রতি নরম মনোভাব দেখাচ্ছে। মুকুল রায় তৃণমূলে যোগ দিতে চলেছেন বলে খবর শোনা যায়। রবিবার একটি সাংবাদিক বৈঠকে মুকুল জানান তিনি বিজেপিতে ছিলেন এবং বিজেপিতেই থাকবেন। সূত্রের খবর রাজ্য বিজেপি তে দিলীপ ঘোষের একচ্ছত্র ক্ষমতা নিয়ে মুকুল রায় কিছু অভিযোগ জানাতেই গত মাসে দিল্লি গিয়েছিলেন।