“গরু পাচারের টাকা তৃণমূলের নেতার নির্বাচনী তহবিল ভরিয়েছে”, রাজ্য সরকারকে বিঁধলেন অধীর

0

কলকাতা: রাজ্যে গরুপাচার নিয়েও শুরু হয়েছে রাজনীতি। গরুপাচার কাণ্ডে সিবিআইয়ের তদন্তকারীরা বুধবার দিল্লি, কলকাতা, শিলিগুড়ি, অমৃতসর, ছত্তিশগড়, গাজিয়াবাদ-সহ ১৫ টি জায়গায় তদন্ত করেছেন। এবার গরুপাচার বিষিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরি। তিনি তাঁর ফেসবুক পেজে লিখেছেন, “বাংলার গরু পাচার রাজ্যের পুলিশ ও শাসক দলের মদত ছাড়া হতে পারে না। বিএসএ লুঠ করেছে বর্ডারে, গরু এসেছে ট্রাক ভর্তি হয়ে জাতীয় ও রাজ্য সড়ক দিয়ে।”

তিনি আরও লেখেন, “মানি ব্যাগে ভরে তো গরু পাচার হয়নি! বরং গরু পাচারের টাকা তৃণমূলের নেতার নির্বাচনী তহবিল আর পুলিশের মানি ব্যাগ ভরিয়েছে। তৃণমূল নেতারা কত করে মাসোহারা পেত সেই রেট পুলিশ যেমন জানে তেমন পাবলিকও জানে। মুর্শিদাবাদে এটা ওপেন টু অল, যারা ক্ষমতায় থাকে পাচারকারীদের কাছে তাদের কদর। কলকাতা পুলিশ হেড কোয়ার্টার থেকে ‘দিদি’র দলের ভবিষ্যৎ, তাদের জন্য টাকার পাহাড় তৈরিতে গরু পাচার বিরাট ভূমিকা পালন করেছে।”

বলা বাহুল্য, রাজ্যে গরুপাচার হয়েই থাকে। আর এই বেআইনি ভাবে গরুপাচার করেই কোটি টাকার আয় করে বাংলার বিভিন্ন জেলাগুলি। বিশেষত দুই দিনাজপুর, মালদহ, মুর্শিদাবাদ, নদিয়া বা উত্তর ২৪ পরগনা। এর মধ্যে যুক্ত থাকেন স্থানীয় নেতা, বিএসএফ, কাস্টমসের একাংশ, নয়তো পাচার সম্ভব নয়। সেই বিষয়েই রাজ্য সরকারকে একহাত নিলেন অধীর।