হাথরাসের ঘটনা ও দলের সাংসদদের হেনস্থার প্রতিবাদে মৌন মিছিল তৃণমূল ছাত্র পরিষদের

0

মাধব কুমার, মালদা: হাথরাস কাণ্ডের প্রতিবাদে মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নং ব্লকের ভবানীপুর ব্রিজে মৌন মিছিল হয় তৃণ মূল ছাত্র পরিষদের পক্ষ থেকে। উপস্থিত ছিলেন মালদা জেলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক বুলবুল খান, যুব তৃণমূল নেতা স্বপন আলী,হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নং ব্লক তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি বিমান ঝা সহ অন্যান্য ব্লক নেতৃত্ব। উল্লেখ্য, উত্তরপ্রদেশের হাথরাসের ধর্ষণ কাণ্ড নিয়ে উত্তাল সারা দেশ। এই ঘটনায় পুলিশ, প্রশাসনের ভূমিকার জন্য সমালোচনার মুখে যোগী সরকার।

নির্যাতিতার পরিবারকে না জানিয়ে রাতের অন্ধকারে মৃতার দেহ পুড়িয়ে দেয় পুলিশ। আর তারপর থেকেই ক্ষোভে ফুটছে সারা দেশ। মিডিয়া থেকে সোশ্যাল মিডিয়া সবজায়গায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে। এমনকি বিরোধী দলের প্রতিনিধি এবং সংবাদমাধ্যমকে পুলিশ নির্যাতিতার বাড়ি যেতে দিচ্ছে না। প্রথমে আটকানো হয় রাহুল গান্ধী এবং প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে। তারপর আটকানো হয় তৃণমূল সাংসদদের একটি প্রতিনিধি দলকে। অভিযোগ ধাক্কা মেরে ফেলে দেওয়া হয় তৃণমূলের রাজ্য সভার সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েনকে। তারই প্রতিবাদে এবং নির্যাতিতার সুবিচারের দাবিতে হয় এই মৌন মিছিল।

বুলবুল খান বলেন, “বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতে এই ধরণের ঘটনা বেশি ঘটছে। আর যেগুলিকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে সেখানকার সরকার। বিরোধী দলের প্রতিনিধিদের আটকে দেওয়া হচ্ছে। আজ আমাদের সাংসদকে ধাক্কা মেরে ফেলেছে সেখানকার পুলিশ। আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।” ছাত্র নেতা বিমান ঝা বলেন, “ধর্ষণ করে নৃশংস ভাবে মারা হলো দলিত তরুণীকে। কিন্তু পুলিশ দোষীদের না ধরে নির্যাতিতার পরিবারকে হুমকি দিচ্ছে। রাতের অন্ধকারে দেহ পুড়িয়ে দিয়েছে পুলিশ। সংবাদমাধ্যমকে আটকাচ্ছে,cবিরোধী দলের প্রতিনিধিদের আটকাচ্ছে। এসবের প্রতিবাদে আমাদের আজ এই মৌন মিছিল। এই ঘটনা নিয়ে নিন্দার কোনো ভাষা নেই।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here