বিজেপির কর্মসূচি বাতিল করতে দুষ্কৃতীদের ব্যাপক বোমাবাজি, অভিযোগের তীর তৃণমূলের দিকে

0

কৌশিক সালুই, বীরভূম: বিজেপির থানায় বিক্ষোভ কর্মসূচিকে ঘিরে বোমাবাজিতে উত্তপ্ত হল এলাকা। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার বীরভূমের পারুই থানায়। বিজেপির অভিযোগ স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় বোমাবাজির ঘটনায় যুক্ত। যদিও তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব সেই অভিযোগ খারিজ করে দিয়ে বলেন উৎসবের মুখে জেলায় গন্ডগোল পাকানোর জন্য বিজেপিই এই কাজ করেছে। ঘটনায় বিজেপির পক্ষ থেকে পারুই থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। জেলায় আইনশৃঙ্খলা অবনতি এবং বিজেপির নেতা ও কর্মীদের উপর পুলিশি জুলুমের প্রতিবাদে বীরভূম জেলার ২৩ টি থানা এলাকায় বিজেপির এদিন বিক্ষোভ কর্মসূচি ছিল।

সেই মতো পারুই থানা এলাকার কর্মীরা বিজেপির সংখ্যালঘু ছেলেদের জেলা সভাপতি শেখ সামাদের নেতৃত্বে প্রায় হাজার তিন মানুষজন উপস্থিত হয়েছিলেন। বিজেপি নেতৃত্বের অভিযোগ প্রায় ২০ জন মত দুষ্কৃতী বিজেপির সেই কর্মসূচি বাতিল করতে ব্যাপক বোমাবাজি শুরু করে। ২৭ থেকে ৩০ টি বোমা ফাটায় বলে তাদের দাবি। দুষ্কৃতীদের বোমায় বিজেপির ওই সংখ্যালঘুর নেতা শেখ সামাদ সহ কয়েকজন খুব সামান্য আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে বলে তাদের অভিযোগ। প্রায় ঘন্টাখানেক মতো সেই বোমাবাজি চলে। সেই সময় উপস্থিত বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা ছত্রভঙ্গ হয়ে গেলেও ফের বেলা দেড়টা নাগাদ তাদের পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি পালিত হয়।

বীরভূম জেলা বিজেপির সংখ্যালঘু সেলের সভাপতি শেখ সামাদ বলেন, “স্থানীয় দুই তৃণমূল নেতার প্রত্যক্ষ মদতে এদিন দুষ্কৃতীরা পুলিশের সামনেই আমাদের লক্ষ্য করে ব্যাপক বোমাবাজি করে। অবিলম্বে সেই সমস্ত দুষ্কৃতীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।” বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সহ-সভাপতি অভিজিৎ সিংহ বলেন,”উৎসব শুরুর মরশুমে বিজেপি জেলায় অশান্তি পাকানোর জন্য বিভিন্ন থানা এলাকায় বিক্ষোভ কর্মসূচি নিয়েছে। এদিন যে বোমাবাজি হয়েছে তার সঙ্গে সরাসরি তারাই যুক্ত। এখানে তৃণমূল কংগ্রেসের কোন ভূমিকা নেই।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here