ফিরহাদকে কটাক্ষ, মমতা বা তৃণমূলের নাম নিলেন না শুভেন্দু: ফের শুরু দল ছাড়ার জল্পনা

0

পার্থ খাঁড়া, মেদিনীপুর: রাজ্যের রাজনীতিতে শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে জল্পনা চলছেই। মঙ্গলবার তা আরও বাড়ল। শুভেন্দু অধিকারী এদিন ‘নন্দীগ্রাম দিবসের’ জনসভায় বক্তব্য রাখেন। এই কর্মসূচী ১৩ বছরের। বক্তৃতার শেষে তিনি বলে গেলেন, জয় বাংলা, ভারত মাতা কি জয়। তবে মমতা বা তৃণমূল কংগ্রেসের নাম উচ্চারনও করেননি তিনি। সেই সভায় বক্তব্য রাখার সময় শুভেন্দু অধিকারী বলেন, “৩ জানুয়ারী যেদিন ভুতার মোড়ে আন্দোলন শুরু হয়েছিল ২০০৭ সালে তার পরের দিন ৪ জানুয়ারি তারাচাঁদবাড় এতিম খানায় বসে ভূমি উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটি গঠন করেছিলাম। আমরা বহু মানুষকে হারিয়েছি। ১০ নভেম্বর রক্তাক্ত সূর্যোদয়ে বহু মানুষ প্রাণ হারালেও তা রুখে দিয়েছিল নন্দীগ্রামের মানুষ।”

ফিরহাদের নাম না করে শুভেন্দুর উক্তি, “আপনারা এতদিন কোথায় ছিলেন? ভোটের পরে আপনারা আসবেন তো? সমর্থকদের উদ্দেশ্যে ডাক দিলেন, আপনারা ৭ জানুয়ারী সূর্য ওঠার আগে আসবেন তো। সম্মেলিতভাবে সবাই বললেন আমরা আসব।” শেষে তিনি বলে গেলেন, জয় বাংলা, ভারত মাতা কি জয়। তবে মমতা বা তৃণমূল কংগ্রেসের নাম উচ্চারনও করেননি তিনি। শুভেন্দু আরও যোগ করেন, “এই আন্দোলন রুখে দেওয়ার পরে বৈঠকে আমাদের নেতারা বলেছিল বিইউপিসি নাম আর আর ব্যবহার করব না। আমরা কোনওদিন বিইউপিসিকে ভোটে ব্যবহার করি না। কিন্তু ৩ জানুয়ারি, ৭ জানুয়ারী, ১৪ মার্চ এবং ১০ নভেম্বর আমরা বিইউপিসি ব্যানারে স্মরন সভা করব।”

“আমি প্রতিবার এখানে এলে পরবর্তী কর্মসূচী জানিয়ে যাই। ৩১ অক্টোবর বিজয়ার শুভেচ্ছা জানাতে এসে আজকের কর্মসূচী জানিয়ে গিয়েছিলাম। এর আগে ২০০৩ সাল থেকে গোকুলনগরে আন্দোলনে এসেছিলাম, তখন আমি যুব নেতা ছিলা। আমি নতুন লোক নই। আমি সেদিন ক্ষমতা নিয়ে কিছু করিনি, সেদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এখানে এসেছিলাম। এই আন্দোলন শুভেন্দু অধিকারীর আন্দোলন নয়, এটা সাধারণ মানুষের আন্দোলন। যারা রাজনৈতিক বিশ্লেষক তাঁরা হা পিত্যেষ করে বসে আছেন আমি এখান থেকে কোন রাজনৈতিক কথা বলব কিনা।

আমি রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। আমি রাজনৈতিক প্লাটফর্মে থেকে বলব। কোন রাস্তা দিয়ে হাঁটলে আমি এগিয়ে যেতে পারব তা রাজনৈতিক প্লাটফর্মে দাঁড়িয়ে বলব”, বলেন তিনি। এই সভার সভাপতিত্ব করেছেন নন্দীগ্রাম ১ নং ব্লকের তৃণমূল সভাপতি মেঘনাদ পাল, এসইউসিআই এর নন্দ পাত্র। ছিলেন তমলুকের তৃণমূল সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারী, খেজুরির তৃণমূল বিধায়ক রঞ্জিত মন্ডল, দঃ কাঁথি বিধান সভার তৃণমূল বিধায়িকা বনশ্রী মাইতি, নন্দকুমারের বিধায়ক সুকুমার দে, ময়নার বিধায়ক সংগ্রাম দোলুই, পশ্চিম পাঁশকুড়ার বিধায়িকা ফিরোজা বিবি প্রমুখেরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here