বিধানসভা নির্বাচনের আগে ঝুঁকিতে শাসক দল: পাচারের টাকার সঙ্গে নাম জড়ালো প্রভাবশালী নেতার

0

কলকাতা: পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে দুর্নীতি নতুন কিছু নয়, এবার আরও একবার তেমন ঘটনারই হদিশ মিলল। ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যের রাজনীতি আবারও কালিমালিপ্ত হতে পারে। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার আধিকারিকরা হদিশ পেয়েছেন টাকা পাচারের। বাংলা দৈনিক গণশক্তির একটি প্রতিবেদন অনুসারে, দুর্গাপুর থেকে আসানসোলের মাঝে হাইওয়ের ধারে হোটেলেই পুলিশি পাহাড়ায় গাড়ির কনভয়ে টাকা ভর্তি ব্যাগ তুলে দেওয়া হয়। প্রতি মাসে এই টাকার পরিমাণ ২৭ থেকে ৩০ কোটি।

আর সেই টাকা ভর্তি ব্যাগ পৌঁছে যায় দক্ষিণ কলকাতায়। সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডাইরেক্ট ট্যাক্সেসের তরফে জানা গিয়েছে, জানানো হয়েছে কলকাতা, পুরুলিয়া, রানিগঞ্জ, আসানসোলের একাধিক ঠিকানায় তল্লাশি চালিয়ে বিপুল পরিমাণ নগদ উদ্ধার হয়েছে। আর এর সঙ্গেই যুক্ত রয়েছেন শসক দল তৃণমূলের প্রভাবশালী নেতা। পুরুলিয়ার বাসিন্দা কয়লা মাফিয়া লালার যে লিখিত বয়ানেই উঠে এসছে এই নেতার নাম। এই টাকা আসছে কয়লা ও গরু পাচারের কারবার থেকে। আর এই সব বেআইনী টাকা ঢুকেছে ওই নেতারই স্ত্রীর অ্যাকাউন্টে। এমনটাই দাবি জানিয়েছে আয়কর দফতরের এক আধিকারিক।

এছাড়াও কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার নজরে রয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ এক ব্যক্তি। সেই ব্যক্তি আবার যুব তৃণমূলের রাজ্যস্তরের কমিটির পদে রয়েছেন। কয়লা মাফিয়া অনুপ মাঝি ওরফে লালার প্রায় ১৬০ টিরও বেশি ভুয়ো সংস্থা রয়েছে তার সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন অভিষেক ঘনিষ্ঠ ঐ ব্যক্তি। প্রতিদিন প্রায় ৩০ থেকে ৪০ কোটি টাকা একাধিক ভুয়ো সংস্থার মাধ্যমে লেন দেন হয়। অর্থাৎ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের আগে বড়সড় ঝুঁকিতে শাসক দল। এরপর সিবিআই এই মামলাটি নিজেদের হাতে নিয়ে তদন্ত শুরু করতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here