”কেন সরকারি সুবিধা থেকে বঞ্চিত হব?”, স্বাস্থ্যসাথী নেওয়ার পরে এমনই মন্তব্য বিজেপি সাংসদের ভাইয়ের

0

পুরুলিয়া : রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে বহুবার প্রচুর মন্তব্য প্রকাশ করেছে বিজেপি নেতৃবর্গ। কিন্তু তাঁরা অথবা তাঁদের পরিবারই আবার রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নেওয়ার জন্য ‘দুয়ারে সরকার’ শিবিরে লাইন দিচ্ছেন।

পুরুলিয়ার বিজেপি সাংসদ জ্যোতির্ময় সিং মাহাতোর ভাই-ভাইপো দুজনেই লাইন দিয়ে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়েছেন এবং বলেছেন, “রাজ্য সরকারের সুবিধা নেবেন না কেন?” উল্লেখ্য, বিজেপি দলের মতে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড পুরোটাই ভাঁওতা। এই কার্ড নাকি মূল্যহীন । তাহলে সেই মূল্যহীন কার্ড কেন তাঁরা নিচ্ছেন?

পুরলিয়ার বিজেপি সাংসদ জ্যোতির্ময় সিং মাহাতোর ভাই কৃত্তিবাস মাহাতো ও ভাইপো পরমেশ্বর মাহাতো লাইনে দাঁড়িয়ে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নেওয়ার পর মন্তব্য করলেন, “আমরা সবাই কার্ড করিয়েছি। কেন সরকারি সুবিধা থেকে বঞ্চিত হব?” কিন্তু তাঁরাই তো বলছেন যে স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের কোন অস্তিত্ব নেই। তাহলে তাঁরা কেন এই সুবিধা উপভোগ করতে চাইছেন? অবশ্য এই ঘটনার প্রেক্ষিতে জ্যোতির্ময় সিং মাহাতোর পক্ষ থেকে কোন উত্তর আসেনি। কিন্তু জানা গিয়েছে জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো ও তাঁর মা অম্বিকা দেবী স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের কোন সুবিধাই নেননি।

এই ঘটনা প্রথম নয়, পুর্বেও অনেকবার একাধিক বিজেপি পরিবারের নেতারা স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়েছেন। দিলীপ ঘোষের ভাইয়ের স্ত্রী থেকে শুরু করে জ্যোতির্ময় সিং মাহাতোর বাড়ির লোকেরা নিচ্ছেন এই প্রকল্পের সুবিধা। মেদিনীপুরে বিজেপি সাংসদ দিলিপ ঘোষ বলেছিলেন, ‘‘আমি স্বাস্থ্যসাথীর কার্ডের বিরোধিতা করছি না। আমি সরকারের প্রতারণার বিরোধিতা করছি। স্বাস্থ্যসাথী কার্ড করার সুযোগ পেলে আমিও করব।’’ পাশাপাশি নিজের অবস্থানে অনড় থেকে তিনি প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন, “কার্ড পেলেন অথচ সুযোগ পেলেন না, তাহলে স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড মাথায় নিয়ে শুয়ে থাকলে কি জ্বর কমবে?”

বিজেপি নেতারা রাজ্য সরকার তথা তৃণমূলের স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের সুবিধা নিচ্ছেন অথচ এই কার্ড নিয়ে ব্যঙ্গও করছেন। তবে কি তাঁরা শুধুমাত্র নিজেদের দলকে প্রতিষ্ঠিত করতে এমন মিথ্যে অভিযোগ আনছেন? মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, যেসব নার্সিংহোম স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের সুবিধা দেবে না তাঁদের লাইসেন্স বাতিল করে দেওয়া হবে। কিন্ত এখনও স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের সুবিধা অনেক নার্সিংহোমই দিচ্ছে না। সেক্ষেত্রে দোষের দায় নার্সিংহোমের উপরেই বর্তায়।