রাজ্যবাসীর নজর শাহের সভার দিকে, ৩১ জানুয়ারি বিজেপিতে যোগ দেবেন তৃণমূলের একাধিক ‘বেসুরো’ নেতারা

0

হাওড়া: বঙ্গে নির্বাচন যত সামনে আসছে লড়াই তো আরও জোরদার হচ্ছে বটেই তারও বেশী যেটা রাজ্যবাসীর নজরে পড়েছে সেটা হল দলবদলের হিড়িক। ৩০ জানুয়ারি আবারও রাজ্যে আসছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। এমনিতেই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় মন্ত্রিত্ব ছাড়ার পর থেকেই হাওড়ার তৃণমূলের উপর চাপ বেড়েছে। নাম না করে অনেকেই দলের একাংশের দিকে আঙ্গুল তুলেছে। এই সমস্ত কিছু নিয়ে বাংলার রাজনীতি তোলপাড় হচ্ছে। অন্য দিকে ৩১ জানুয়ারী শাহের সভাতে রাজীব সহ বহু তৃণমূল নেতার বিজেপিতে যোগদানের কথা রয়েছে। সব মিলিয়ে আবারও বঙ্গ রাজনীতিতে আরও এক ঢেউ উঠতে চলেছে।

৩১ জানুয়ারী দুপুরে হাওড়া সদরে কর্মসূচি শেষ করে পাঁচলার একটি মাঠে চপারে নামবেন অমিত শাহ। সেখান থেকে রঘুদেবপুরে একটি তপশিলি পরিবারে মধ্যাহ্নভোজন করে তারপরে উলুবেড়িয়া পৌরসভা থেকে লকগেট পর্যন্ত একটি রোড শোয়ে অংশ নেবেন। এমনটাই খবর রয়েছে হাওড়া গ্রামীণ জেলা বিজেপি সূত্রে। হাওড়া গ্রামীণ জেলা বিজেপির সদ্য নিযুক্ত সভাপতি প্রত্যুষ মন্ডল বলেছেন,”আগামী ৩১ শে জানুয়ারি গ্রামীণ হাওড়ার মানুষ এক ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষী থাকবেন।” নির্বাচনের আগে শাহের এই সফর বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। কারণ আগেই মন্ত্রিত্ব, দল ছেড়েছেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা, তার পরেই সেই তালিকাতে যোগ দিয়েছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। দলে থেকে দলে ভাবমূর্তি নষ্ট করার অভিযোগে বৈশালী ডালমিয়াকে তৃণমূল থেকে বহিষ্কৃত করা হয়েছে। সেই সঙ্গে তৃণমূলে ‘বেসুরো’ একাধিক।

শুভেন্দু অধিকারী মতোই তৃণমূলের এই সমস্ত নেতারা অমিত শাহের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করতে পারেন। সেই মতোই বিজেপি একটি তালিকা প্রস্তুত করেছে। যেখানে রাজীব- লক্ষ্মীরতন সহ বহু হেভি ওয়েট তৃণমূল নেতাদের নাম রয়েছে। যদিও সেই তালিকা ভিত্তিহীন বলেই দাবি করেছে শাসক দল। তবে এমনটা যে হবে না সেই কথা উড়িয়ে দিচ্ছেন না অনেকেই। যেভাবে বিজেপি রাজ্যের ক্ষমতা দখলের লড়াইয়ে নেমেছে তাতে তাঁদের কাছে এখন কোনও কিছুই অসম্ভম নয়। যা রটে তার কিছুটাও ঘটে তাই জানুয়ারির সভায় শাহের সভায় ঠিক কি হয় সেই দিকেই তাকিয়ে বঙ্গবাসী।