প্রতিবারের ন্যায় এবারও উত্তরবঙ্গের নয় জন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে ‘বঙ্গরত্ন’ সম্মান প্রদান করলেন মুখ্যমন্ত্রী

0

 কুশল দাসগুপ্ত, শিলিগুড়ি: প্রতিবছরই উত্তরবঙ্গ উৎসবের মঞ্চ থেকে বিশিষ্ট মানুষদের বঙ্গরত্ন পুরস্কারে পুরস্কৃত করা হয়। এবারেও উত্তরবঙ্গের ৯ জন বিশিষ্ট মানুষকে বঙ্গরত্ন সম্মানে সম্মানিত করা হল। এরমধ্যে ছিলেন দার্জিলিং জেলার ২ জন। একজন শিলিগুড়ি শহরের বিশিষ্ট ডাক্তার শেখর চক্রবর্তী এবং অন্যজন পানিঘাটার বাসিন্দা সমাজসেবী রঙ্গু সৌরিয়া। বঙ্গরত্ন সম্মান প্রদানের পাশাপাশি এদিনের মঞ্চ থেকে তিস্তা নদীর ওপর জয়ী সেতু, কোচবিহার নিশিগঞ্জের অগ্নিনির্বাপক কেন্দ্র সহ রাজ্যের একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী।

বংরত্ন প্রাপ্ত বাকিরা হলেন, পরিবেশপ্রেমী রাজা রাউত, লোকশিল্প গবেষক ও লেখক আলিপুরদুয়ারের প্রমোদ নাথ। কোচবিহার থেকে বঙ্গরত্ন পাচ্ছেন সাংবাদিক মইনুদ্দিন চিস্তি। উত্তর দিনাজপুরের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ পার্থ সেন, আদিবাসী ও পিছিয়ে পড়া সম্প্রদায়কে নিয়ে কাজ করার জন্য দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে বঙ্গরত্ন পেয়েছেন তাপস কুমার চক্রবর্তী। মালদার নাট্যাকার ও অভিনেতা পরিমল ত্রিবেদি এই সম্মান পেয়েছেন। নারী ও শিশু পাচার রোধে বঙ্গরত্ন পেয়েছেন দার্জিলিঙের সমাজসেবী রঙ্গু সৌরিয়া। আজ শিলিগুড়ির বাঘাযতীন পার্কে উত্তরবঙ্গ উৎসবের মঞ্চে তাকে বঙ্গরত্ন সম্মানে সম্মানিত করেন মুখ্যমন্ত্রী। জানা গিয়েছে, ২০০৪ সাল থেকে এই কাজ করে আসছেন তিনি। এখনও অবধি প্রায় ৮ হাজারের বেশী নারী ও শিশুকে নিষিদ্ধ পল্লী ও বিভিন্ন জায়গা থেকে উদ্ধার করেছেন তিনি। তবে এই কাজ করতে গিয়ে বিভিন্ন অসুবিধায় পড়তে হয় এমনটাই জানান তিনি। তবে নারীদের স্বার্থেই এই কাজে নামেন তিনি।

রঙ্গু সৌরিয়া বলেন, এই সম্মান পেয়ে খুব ভালো লাগছে।একজন নারীর হাত থেকে এই সম্মান পেয়ে খুবই খুশি। তিনি আরও বলেন, যাদের আমি উদ্ধার করছি তাদের পরিবার সহজে মেনে নিতে ভয় করে।তাই তাদের শিলিগুড়িতে একটি হোম তৈরি হচ্ছে।উদ্ধার হওয়া মেয়েদের নিয়েও বিভিন্ন পরিকল্পনা রয়েছে।ভবিষ্যতেও আরও কিছু হোম তৈরি করার পরিকল্পনা রয়েছে তার।