অসঙ্গতির অভিযোগে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় স্থগিতাদেশ হাইকোর্টের

0

কলকাতা: টেট পরীক্ষা ও শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে অতীতে বারবার অস্বস্তিতে পড়তে হয়েছে রাজ্য সরকারকে। তাই ভোটের আগে বিরাট সংখ্যাক শূন্যপদে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের মেধাতালিকা প্রকাশ করে রাজ্য সরকার। যা ছিল আসন্ন নির্বাচনের তুরুপের তাসের মতো। নির্বাচনে এক ধাক্কায় অনেকটাই এগিয়ে দিয়েছিল দিদির সরকারকে। কিন্তু ফের ধাক্কা খেলো সেই প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ। একাধিক বেনিয়মের অভিযোগে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় স্থগিতাদেশ দিল কলকাতা হাই কোর্ট। যার নির্বাচনের আগে রাজ্যে সরকারের কাছে একেবারেই স্বস্তিদায়ক নয়।

উল্লেখ্য, চলতি মাসের ১৬ তারিখ ১৬ হাজার ৫০০ শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগে মেধাতালিকা প্রকাশ করেছিল প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। এর আগে গত ২৩ ডিসেম্বর এ নিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল পর্ষদ। মূলত যাঁদের প্রশিক্ষণ রয়েছে, সেই প্রার্থীরা আবেদনের যোগ্য বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ ছিল। এরপর জানুয়ারিতে ইন্টারভিউ প্রক্রিয়া শুরু হয়। কিন্তু সেই প্রক্রিয়া শুরু হতেই একাধিক অসঙ্গতির অভিযোগ ওঠে। এই দাবি করে আদালতের দ্বারস্থ হন কয়েকশো প্রার্থী।

মামলাকারীদের পক্ষের আইনজীবী ফিরদৌস শামিম অভিযোগ তুলেছিলেন, অস্বচ্ছ মেধাতালিকা প্রকাশ হয়েছে। তাছাড়া ২০১৪-র সফল প্রার্থীদের ইন্টারভিউ প্রক্রিয়া শেষ না করেই নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করে দেওয়া হয়েছে। এই মর্মেই হাই কোর্টের বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের বেঞ্চে মামলা দায়ের হয়েছিল। এর জেরে ইতিমধ্যেই যে শিক্ষকরা নিয়োগপত্র পেয়ে চাকরিতে যোগ দিয়েছেন, তাঁদের ভবিষ্যৎ বড়সড় অনিশ্চয়তার মুখে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here