নন্দীগ্রামে শুভেন্দু – মমতা’ই, অখ্যাত ডেবরায় মুখোমুখি দুই আইপিএস

0

কলকাতা : একপ্রকার নিশ্চিত ছিল। তাতেই শিলমোহর পড়ল। নন্দীগ্রামে শুভেন্দু বনাম মমতাই। একপ্রকার চাপে পড়েই শনিবার তড়িঘড়ি করে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করল রাজ্য বিজেপি। আর তাতেই চমক ছিল। নন্দীগ্রামে দাঁড় করানো হলো শুভেন্দুকেই। আর তাই একুশে নন্দীগ্রামে লড়াই তৃণমূল বনাম প্রাক্তন তৃণমূলের। যেখানে মুখ্যমন্ত্রী ফিরে গিয়েছে নিজের ‘রণভূমি’তে সেখানে দলবদলের পর নিজের গড়েই জমি হারিয়েছে শুভেন্দু।

কারণ রাজ্য বিজেপি ভালোমতোই জানে নন্দীগ্রামের তৃণমূল হাওয়া একবার বইতে শুরু করলে মমতার হ্যাটট্রিক কেই আটকাতে পারবে না। সে যত হেভিওয়েটই হোক। আর তাই ঝুঁকি না নিয়ে শুভেন্দুকে নিজের গড়েই পাঠাল রাজ্য বিজেপি। তাই শুভেন্দুর কাছে একুশের লড়াই হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রেস্টিজ ফাইট। অন্যদিকে নন্দীগ্রাম মমতার ‘লাকি’ জায়গা। আর এই নন্দীগ্রাম থেকেই ঘাসফুল ফুটেছিল সারা রাজ্যে। ২০১৬ সালে মুখ্যমন্ত্রী নিজে শুভেন্দুকে প্রার্থী ঘোষণা করেছিলেন। কিন্তু পাঁচ বছর কাটতেই সেই শুভেন্দু দাঁড়িয়ে মমতার বিরুদ্ধে।

অন্যদিকে ডেবরা আসনে প্রার্থী ঘোষণতেই চমক দিয়েছে রাজ্য বিজেপি। সেখানে আবার দুই আইপিএসের লড়াই। কারণ সেখানে তৃণমূল প্রার্থী হুমায়ুন কবীর। আর তার বিপরীত রাজ্য বিজেপির প্রার্থী অপর এক আইপিএস ভারতী ঘোষ। রাজ্যের দুই দুদে পুলিশ কর্তার মুখোমুখি ফাইট তাৎপর্যপূর্ণ করে তুলেছে অখ্যাত আসন ডেবরা’কে। এই ডেবরায় তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রবল। গত লোকসভা নির্বাচনে এই ডেবরা কেন্দ্রে ৪ হাজার ২০৯ ভোটে এগিয়ে ছিল বিজেপি। যদিও একে গুরুত্ব দিতে চাইছে না হুমায়ুন কবীর। তাঁর বক্তব্য, “খেলা হবে। কেউ জিতবে। কেউ হারবে। তবে খেলাটা হোক গণতন্ত্রিকভাবে।”