বেআইনী মামলার তালিকায় শীর্ষে রয়েছে বিজেপি নেতাদের নাম: সমীক্ষা

0

কলকাতা: ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি বাংলায় ভালোই শক্তি নিতে পারে, তবে ২১ এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে সামনে এল এক কুরুচিকর সত্য। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে ২০০৪ থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে ফৌজদারী মামলায় গেরুয়া দলের সাংসদ সদস্য ও বিধায়কদের সর্বোচ্চ শতাংশ বেআইনী কেস রয়েছে। মঙ্গলবার প্রকাশিত এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ২০০৪ সাল থেকে নির্বাচিত বিজেপি সাংসদ ও বিধায়কদের ২৯ জনের মধ্যে ৫৯ শতাংশ বা ১৭ জনের বিরুদ্ধে বেআইনী মামলা রয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে আরও প্রকাশিত হয়েছে যে ৪৮ শতাংশ বা ১৪ জন সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে গুরুতর অপরাধমূলক মামলার অভিযোগ রয়েছে। তুলনায় তৃণমূল কংগ্রেসে ২০০৪ সাল থেকে নির্বাচিত ৫২০ সংসদ সদস্য ও বিধায়কদের মধ্যে ৩২ শতাংশ বা ১৭১ জনের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে। মামলা নিয়ে মোট সংসদ সদস্যের মধ্যে ১৫১ বা ২৫ শতাংশের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। সিভিল সোসাইটি সংস্থা পশ্চিমবঙ্গ ইলেকশন ওয়াচ অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্র্যাটিক রিফর্মসের সাথে যুক্ত এবং নির্বাচনী সংস্কার ও সুশাসনের দিকে স্বাধীনভাবে কাজ করে।

আসন্ন বিধানসভা ভোটে মনোনয়নপত্র দাখিলকারী প্রার্থীদের হলফনামা বিশ্লেষণ করা হবে এবং আটটি নির্বাচনের পর্যায়ক্রমে অনুরূপ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হবে বলে জানানো হয়েছে। মঙ্গলবারের প্রতিবেদনে আরও দেখা যায় যে রাজ্যে বিজেপির আইনপ্রণেতারা তাদের হলফনামায় ঘোষিত সম্পদের গড় মূল্য বিবেচনায় সবচেয়ে ধনী। ২০০৯ সাল থেকে বিজেপির ২৯ জন সংসদ সদস্য ও বিধায়কদের গড় সম্পদের পরিমাণ ২.২৭ কোটি টাকা। অন্যদিকে তৃণমূলের ৩৫৩ জন সংসদ সদস্য যাদের গড় সম্পদ ১.৫৫ কোটি টাকা।