বিজেপির সম্পূর্ণ প্রার্থী তালিকা ঘোষণা কয়েক দিন পরেই, মিঠুন থাকতে পারেন শুভেন্দুর মনোনয়নে 

0

কলকাতা: আগামী ১৪ মার্চের মধ্যে বিজেপির তরফে বাকি সব কেন্দ্রে তাদের দলীয় প্রার্থীর নাম ঘোষনা করতে পারেন এমনটাই খবর দলীয় সূত্রে। এখনও পর্যন্ত প্রথম ২ দফায় ভোট যে সকল কেন্দ্রে আসন্ন সেই সকল কেন্দ্রের প্রার্থীদের নামের তালিকা তারা ইতিমধ্যে ঘোষণা করেছেন। আগামী ১৩ ও ১৪ মার্চে বাকি কেন্দ্রের প্রাথীদের নাম ঘোষণা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। জানা গিয়েছে, আগামী ১২ মার্চ বঙ্গ বিজেপি কমিটির নেতাদের দিল্লি যাওয়ার কথা। ওই দিনেই তাদের বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে বৈঠকের সম্ভাবনা। তার আগেই ১১ মার্চ রাজ্য কমিটির বৈঠকের মাধ্যমে সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম চূড়ান্ত করা হবে বলে খবর।

অন্যদিকে খড়গপুর সদর কেন্দ্রে দ্বিতীয় দফায় ভোট অর্থাৎ ১ এপ্রিল কিন্তু সেখানকার প্রার্থীর নাম এখনও পর্যন্ত ঘোষণা হয়নি বিজেপির তরফে। প্রার্থী মনোনয়ন তালিকা জমা দেওয়ার শেষ তারিখ আগামী ১২ মার্চ, ফলে আশা করা যায় তার পরেই ওই কেন্দ্রের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হবে। খড়গপুরের বিজেপি রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ প্রার্থী হবেন কিনা তা নিয়ে চলছে জল্পনা। সেখানকার বিজেপি কর্মী সমর্থকরা অবশ্য দাবি করেছেন দিলীপ বাবুকেই ওই কেন্দ্রের প্রার্থী করা হোক।তবে এখনও পর্যন্ত বিজেপি সূত্রে খবর রাজ্যের দলীয় সাংসদদের বিধান সভার প্রার্থী করার কথা ভাবছেন না বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।

তবে ২-১ টি ক্ষেত্রে হতে পারে ব্যতিক্রম এবং এটি যদি হয় তো সবার প্রথম বিবেচিত হবে দিলীপ ঘোষের নাম। বিজেপির এক নেতার বক্তব্য প্রার্থী নির্বাচনের বিষয়টি বিজেপির রাজ্য সভাপতির দায়িত্বে। অপরদিকে শুভেন্দু অধিকারী নন্দীগ্রামে আগামী ১২ মার্চ মনোনয়ন পত্র জমা দেবেন সেখানে সে দিন উপস্থিত থাকবেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি এছাড়াও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান, থাকবেন কৈলাশ বিজয়বর্গীয় এবং মুকুল রায়। মিঠুন চক্রবর্তীর সেখানে উপস্থিত থাকা নিয়ে চলছে জল্পনা। কারণ মহাগুরু ঘোষণা করেছিলেন ওই দিন থেকেই তিনি বিজেপির হয়ে বাংলায় প্রচার শুরু করবেন। ইতিমধ্যে মিঠুনের উপস্থিতি নিয়ে জল্পনার মধ্যেই তিনি বৈদ্যুতিন সংবাদ মাধ্যমে জানান, তিনি ইচ্ছা করলেই যেতে পারেন না। যদি ওই দিন যাওয়ার কথা হয় তো কৈলাশ বিজয়বর্গীয়, দিলীপ ঘোষরা তাকে বলবেন, অর্থাৎ তাঁর কথায় স্পষ্ট দলীয় নির্দেশ চূড়ান্ত এ বিষয়।