খড়্গপুর শহর আমার রাজনৈতিক কর্মভূমি, জিততেই এসেছি: বিজেপি প্রার্থী হিরণ

0

পার্থ খাঁড়া, পশ্চিম মেদিনীপুর: বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের বিধানসভার কেন্দ্র থেকে শুক্রবার মনোনয়নপত্র জমা দিলেন খড়্গপুর সদরের বিজেপি প্রার্থী হিরণ্ময় চট্টোপাধ্যায় ওরফে হিরণ। শুক্রবারই ছিল মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন। মনোনয়ন পেশের পর সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে গিয়ে হিরণ বলেন, “আজ থেকে খড়্গপুর শহর আমার রাজনৈতিক কর্মভূমি হল। নির্বাচনে হার-জিত রয়েছে তবে আমি খড়্গপুরে জিততেই এসেছি।” বিজেপি প্রার্থী আরও বলেন, “২০১৬ তে দিলীপদাকে খড়্গপুরের মানুষ আশীর্বাদ করেছিলেন এবারও তাই হবে। মানুষের উচ্ছ্বাস তাই বলছে। ২০১৯ এ তৃণমূল হাফ হয়েছিল এবার বাংলায় বিজেপি সরকার গড়বে।”

এদিন গোলবাজার স্থিত রামমন্দির থেকে পুজো সেরে হিরণ মিছিল করে মহকুমাশাসকের কার্যালয়ে পৌঁছন। তাঁর সাথে উপস্থিত ছিলেন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, জেলা সভাপতি সৌমেন তিওয়ারী, অভিষেক অগরওয়াল, অনুশ্রী বেহরা সহ অনেকে। হিরণ বলেন, বিজেপি বাংলায় নিজেদের জোরে লড়ছে। আমাদের সাথে পুলিশ, প্রশাসন নেই। তৃণমূলের জন্য তাঁর সংলাপ, ‘মারবি যত, ঝরবে রক্ত। দেখ কত এখানে আছে শ্রীরামের ভক্ত।’ বিজেপির তারকা প্রার্থীর অভিযোগ, খড়্গপুর আইআইটির কৃতীরা বিদেশে চলে যাচ্ছেন কারণ বাংলায় কাজের সুযোগ নেই। খড়্গপুরের যুবাদেরও অনেকে কাজের জন্য অন্যান্য রাজ্যে চলে যেতে বাধ্য হয়েছেন।

এই ছবি বদল করতে বিজেপিকে দরকার। তিনি বলেন, আমি হাওড়ার উলুবেড়িয়ার গ্রামের ছেলে। ১২/১৩ বছর সিনেমা করার পর পাকাপাকিভাবে রাজনীতিতে এলাম এই ভেবে যে মানুষের জন্য কিছু করতে হবে। দলের রাজ্য সভাপতি তথা মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ তৃণমূলকে আর খেলতে হবে না। ওদের স্ট্রাইকারই তো আহত হয়ে গিয়েছেন। খড়্গপুর সদরে বিজেপি জিতেছে, আবার জিতবে। এবার এখানে এসে আড্ডা মারব।’ এদিন খড়্গপুর সদরের বিজেপি প্রার্থীকে নিয়ে দলের কর্মী-সমর্থকদের উচ্ছ্বাস ছিল চোখে পড়ার মতো।