বিজেপিকে একটিও ভোট নয়: বিবাহ আসরে হাতে কার্ড নিয়ে প্রচার নবদম্পতির

0

 

বর্ধমান: ভোটের সময় কত কিছুই না ঘটে। নেমে পড়েন রাস্তায় রাস্তায় পায়ে হেঁটে প্রচারে নামেন তারকা প্রার্থীরা। আবার অপরদিকে প্রথমবার ভোটে দাঁড়িয়ে লোকাল ট্রেনে চড়ে প্রচার সারেন নতুন প্রার্থীরাও। তবে এবার আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের প্রভাব পড়েছে বিয়ে বাড়ির অন্দরেও। “বিজেপিকে একটিও ভোট নয়” এই উক্তি লেখা প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে নবদম্পতির ক্যামেরার সামনে পোজ দিচ্ছেন। এর সাথেই পাশে প্ল্যাকার্ড হাতে রয়েছেন অতিথিরাও। সকলেরই আবেদন একটাই বিজেপিকে একটিও ভোট নয়। অন্য যে কোনও দলকে ভোট দিন। তাঁদের বক্তব্য, বিজেপি যে নীতি নিয়ে রাজ্যে ভোট চাইছে তা বাংলার সংস্কৃতির জন্য ঠিক নয় এবং তা মেলেও না বাংলার সংস্কৃতির সাথে।

গত ১০ই মার্চ বর্ধমানের গলসি থানার শিমুলিয়া গ্রামের বাসিন্দা পেশায় শিক্ষক শেখ মহঃ হাফিজুরের সঙ্গে বীরভূমের তারাপীঠের সন্ধ্যাজোল গ্রামের আজিজা খাতুনের বিবাহ সম্পূর্ণ হয়।এর ঠিক পরের দিন অর্থাৎ ১১ই মার্চ গলসি গ্রামে আয়োজিত প্রীতিভোজের আসরে হাফিজুর এবং আজিজা প্লাকার্ডে “বিজেপিকে একটিও ভোট নয়”এই উক্তি লিখে ক্যামেরার সামনে পোজ দেন। অনেকেই তাদের এই উদ্যোগকে রাজনৈতিক গিমিক বললেও ,নববিবাহিত দম্পতি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁরা সমাজের সচেতন মানুষেদের কাছে একটা বার্তা তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন। বিজেপি ছাড়া যেকোন রাজনৈতিক দলকেই মানুষ ভোট দিতে পারেন। তবে বিজেপিকে যেন ভোট না দেওয়া হয়।

কিন্তু কী করণের ভিত্তিতে তাদের এমন আবেদন সেই বিষয় প্রশ্ন করা হলে ? শেখ মহঃ হাফিজুর বলেন, “বিজেপির শাসনে দেশের অবস্থা খারাপ হয়েছে। বাংলাতে জাতিভেদের উপর ভোট করানোর চেষ্টা হচ্ছে। কৃষকদের ফসলের বিক্রির নিয়ন্ত্রণ থাকছে ব্যবসায়ীদের হাতে। আমি একটি কৃষি পরিবার থেকে উঠে এসেছি। আমি জানি কৃষকদের যন্ত্রণা। এর প্রতিবাদে করতেই আমি উদ্যোগ নিয়েছে। যেকোন দলকে ভোট দিন বিজেপিকে একদম নয়।”