তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে না, অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিককে নিয়েই বেশি উৎসাহিত উত্তরপাড়ার মানুষ 

0

কলকাতা: আসন্ন নির্বাচনের তৃণমূল প্রার্থী হিসাবে না সেলিব্রিটি ঠিক কোন মর্যাদা পাবেন উত্তরপাড়ার তৃণমূল প্রার্থী কাঞ্চন মল্লিক। এবারের আসন্ন বিধান সভা নির্বাচনে একঝাঁক তারকা প্রার্থী তৃনমূলের পক্ষে।এর আগেও বেশ কয়েকজন তারকা তৃণমূলে ছিলেন ঠিক তেমনি আসন্ন বিধান সভা নির্বাচনের আগে আবারও টলিপাড়ার একঝাঁক নক্ষত্র যোগ দিয়েছেন শাসক দলে। ইতিমধ্যেই তৃনমূলের পক্ষে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ হয়ে গেছে এবং সেই তালিকায় উত্তর পাড়ার তৃণমূল প্রার্থী হিসাবে মনোনীত হয়েছেন অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিক।

কাঞ্চন মল্লিক তার ভোট প্রচারের জন্য উত্তর পাড়ার শিমুলতলা এলাকায় উপস্থিত হলে সেখানে সৃষ্টি হয় এক বিশৃঙ্খলার পরিবেশ।তৃণমূল প্রার্থী হিসাবে না বরং তারকা হিসাবে তাকে দেখতে মানুষ ভির জমায়। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে স্থানীয় তৃণমূল কর্মীরাই দলীয় প্রার্থীকে গাড়ি থেকে নামিয়ে পার্টি অফিসে প্রবেশ করান।সেখানে তৃনমূলের পক্ষে ফুল-মালা-শাঁখ নিয়ে দাঁড়িয়ে দলের মহিলা কর্মীরা। কাঞ্চন মল্লিক ঢুকতেই তাঁকে বরণ করে নেওয়া হল। এসব দেখে কাঞ্চন বলেন ‘বিশ্বাস করুন মানুষের পাশে এসে দাঁড়াতে চাই।‘

অভিনেতা কাঞ্চন বলেন, ‘এটা ভাবলে হবে না, পরিযায়ীর মতো এসেছি ,চলে যাব। এটা ভাবলেও হবে না ভোট মিটলেই এখানে কোনও অনুষ্ঠানে করতে আসলে পয়সা নেব। দলীয় কর্মীদের উষ্ণতা আমার মন কেড়েছে। আমি উত্তরপাড়ার মানুষের পাশে আছি। গাড়িতে বসে হাত নাড়িয়ে নয়, বরং মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে, মানুষের কাজ করতে চাই’। প্রসঙ্গত তিনি আরও বলেন সম্প্রতি দলবদল এবং নতুন দলে যোগদানের যে হিড়িক পড়েছে,তার কারণ প্রত্যেকেই মানুষের জন্য কাজ করতেই দল বদলেছেন বা রাজনৈতিক অবস্থান নিয়েছেন। এমনই দাবি করেন কাঞ্চন সংবাদমাধ্যমের সামনে।

কাঞ্চনের বক্তব্যকে অবশ্য কটাক্ষ করেছেন বিজেপির প্রবীর ঘোষাল।সম্প্রতি বিজেপিতে করেছেন তিনি। প্রবীর ঘোষাল উত্তরপাড়ার দুই বারের বিধায়ক। তিনি কাঞ্চনের প্রত্যুত্তরে বলেন, ‘আমার বাড়ির পুজো ২৫ বছরের। তাই উত্তরপাড়ায় কেউ আমাকে বহিরাগত বললে লোকে তাঁকে পাগল বলতে পারে। সেলিব্রিটি প্রার্থী হলে কী হয়, মানুষ আগে টের পেয়েছে। যদিও উত্তরপাড়ায় সক্ত জমির ওপর দাঁড়িয়ে বিজেপি।‘ এখন দেখার প্রবীর ঘোষালের এই উক্তির কি উত্তর দেন তৃণমূল প্রার্থী কাঞ্চন মল্লিক সত্যি কি তিনি মানুষের পাশে দাড়িয়ে কাজ করতে পারবেন নাকি তারকা প্রার্থী হিসাবে শুধু নির্বাচনের প্রাক্কালেই তাকে দেখা যাবে ।এই প্রশ্ন এখন থেকেই যাচ্ছে উত্তর পাড়ার মানুষের মনে!