রাজনীতি্র মঞ্চ নাকি টলিউড? দলীয় প্রচারে বেরিয়ে ‘খেলা হবে’ গানে নাচ কৌশানির

0

কলকাতা: রাজীনীতির ময়দানে তারকাদের ছড়াছড়ি, চেনা মুখগুলোই রাজীনীতির অন্দরে। রাজনীতিও খানিকটা অভিনয়ের জায়গা হয়ে গিয়েছে, ভোটের আগে প্রতিশ্রুতি আর ভোট শেষ হলেই বেপাত্তা। তৃণমূল প্রার্থী কৌশানি, রুপালি পর্দার এক চেনা মুখ। ভোটের প্রচারে গিয়ে ‘খেলা হবে ’ গানে তুমুল নাচলেন, সাথে পা মেলালেন এলাকার মা, বোনেরাও। স্বতঃস্ফূর্ত নাচের আঙ্গিকে তিঁনি বুঝিয়ে দিতে চাইলেন বিরোধী দলকে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই তৃতীয় বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হবেন, তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

কিন্তু অভিনয় জগৎ আর রাজনীতির পার্থক্য বোধহয় আর নেই, রাজনীতির ময়দানে নেমেও অভিনয় সত্তা বজায় রাখা চাই। সেইজন্যই তারকা প্রার্থীরা এবং দলীয় কর্মীরা নাচ, গান এসবে ভরিয়ে দিচ্ছেন। রাজনীতির আসল মানে সাধারণ মানুষের দুর্দশায় সামিল হওয়া, খেতে না পাওয়া মানুষের মুখে দুমুঠো ভাত তুলে দেওয়া। কিন্তু সেসব কিছুর বালাই নেই, জনপ্রিয়তার শিখরে পৌঁছাতে নাচ, গান, কটুক্তি এসমস্ত কিছুকেই বেছে নিয়েছেন দলীয় প্রার্থী তথা তারকা প্রার্থীরা।

তৃণমূল কংগ্রেসের অন্দরে চির ধরলেও, একে একে তারকাদের দলে যোগ দিতে গেছে। কৃষ্ণনগরের প্রার্থী কৌশানিকেও তৃণমূলের ভোট প্রচারে চটুল নৃত্যে শিরোনামে আসতে দেখা গিয়েছে। কৌশানির সাথে এলাকার মা বোনেদের নাচে পা মেলাতে দেখা যাওয়ায় স্বস্তি পেয়েছে দল, সুতরাং তৃণমূল কংগ্রেসকে সমর্থন করতেই তাঁদের এই স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ। যা নিয়ে বিজেপিকে চাপের মুখে পড়তে হতে পারে, খেলা ঘুরে গিয়ে পুনরায় মুখ্যমন্ত্রীর পদে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দেখা যেতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here