দিলীপের পাল্টা নিদান: তৃণমূলী গুন্ডাদের কেউ যেন হেঁটে ফিরে যেতে না পারে 

0

খড়গপুর: ভোটের আগে ক্রমাগত চলছে রাজনৈতিক বিতর্ক। তারই মধ্যে রাত পোহালেই প্রথম দফার নির্বাচন শুরু। মেদিনীপুরের বেশ কয়েকটি আসনে কাল নির্বাচন।আর তাই শেষ মুহূর্তের প্রচারে গিয়ে আবারও সেই বিতর্কের মুখে পড়লেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দীলিপ ঘোষ। শুক্রবার খড়গপুর চায় পে চর্চা থেকে দীলিপ বাবু বলেন “কেউ হেঁটে হুমকি দিতে এলে হেঁটে ফিরতে যেন না পারে।”আর তারপরই এই মন্তব্যের কারণে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়তে হয় দীলিপ ঘোষ কে।

শুক্রবারের এই চায় পে চর্চা থেকে পুলিশ ও তৃণমূলের বিরুদ্ধে প্রবল তোপ দাগেন দীলিপ। তিনি পুলিশের বিরূদ্ধে গুন্ডামি অভিযোগ তোলেন এছাড়াও তিনি বলেন “ভোটের সময়ও পুলিশের নিয়মিত আমাদের কর্মীদের হুমকি দিচ্ছে। অকারণে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। হেনস্তা করা হচ্ছে যাতে তাঁরা ভোট দিতে না পারে।” এদিন তিনি আরও অভিযোগ করেন বিভিন্ন এলাকা থেকে ভয় দেখিয়ে পয়সা নিচ্ছে পুলিশ।আর পুলিশের সহযোগিতায় এলাকায় গুন্ডারা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। এর পাশাপাশি বিজেপির রাজ্য সভাপতি তাদের কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন “কেউ দুটো-চারটে চকলেট বোম দেখিয়ে ভয় দেখানোর চেষ্টা করলে একদম পাত্তা দেবেন না। ওরা হেঁটে এলে যেন হেঁটে ফিরতে না পারে সেদিকে খেয়াল রাখবেন। বুঝিয়ে দেবেন উত্তর দিতে আমরাও জানি।”

বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা মেদিনীপুরের সাংসদের এই রকম মন্তব্যেকে তৈরি করেছে বিতর্ক। প্রসঙ্গত বারংবার বেফাঁস মন্তব্যের ফলে বিতর্কে করেছেন দিলীপ ঘোষ। মাত্র কদিন আগে মুখ্যমন্ত্রীর বারমুন্ডা পড়ে ভাঙা পা দেখানোর পরামর্শ দিয়ে প্রবল বিতর্কের মুখে পড়েন দীলিপ ঘোষ আবারও বৃহস্পতিবার খড়গপুর শহরে দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি আবারও বলেন ” শাড়ি পড়ে একজন মহিলা বারবার পা দেখবেন এটা আমাদের কাছে দৃষ্টিকটু লেগেছে। আমি তার প্রতিবাদ করেছি। আমি যা বলেছি সেটা পরিষ্কার করে বলেছি। আর আমাদের মহিলারা বলেছেন এটা ভালো লাগছে না।” দীলিপ ঘোষের এহেন মন্তব্যের ফলে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here