খাদ্যমন্ত্রী নয় ‘চাল চোরমন্ত্রী’, পুরনো সখ্যতা ভুলে কড়া আক্রমণ শুভেন্দুর

0

হাবড়া: সোমবার বাংলায় তিনটি সভা ছিল প্রধানমন্ত্রীর। বর্ধমান, কল্যাণীর সভার পর মোদীর কপ্টার যখন বারাসাতে নামল তখন বিকেল প্রায় পাঁচটা। প্রবল গরমের মধ্যেও দেখা যায় মোদীর সভায় তিল ধারণের জায়গা নেই। হাওয়ায় যা না হলকা তার চেয়ে বোধহয় তৃণমূলের বিরুদ্ধে মোদীর আক্রমণের তাপমাত্রা ছিল আরও বেশি। সেদিন সভা থেকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে চাল চুরির অভিযোগ এনে সরাসরি খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের জামানত বাজেয়াপ্ত করার ডাক দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন আমফানের সময়, ” গরিব মানুষের গাছের চাল পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্ব ছিল খাদ্যমন্ত্রীর। এরা গরীব মানুষের চাল লুট করেছে।”

ঠিক একই সুরে গলা সাধলেন শুভেন্দু অধিকারী। গতকাল, মঙ্গলবার হাবড়ার নাংলায় সভা করতে এলেন শুভেন্দু। জ্যোতিপ্রিয়কে ভোটে হারানোর ডাক দিয়ে তাঁর নাম না করে বললেন, ‘‘এখানে যিনি আছেন, বিরাট মাপের চাল চোর মন্ত্রী। রাইস মিলের লোকেরা আমায় বলছেন, ব্যাটাকে হারান।’’ জ্যোতিপ্রিয়ও অবশ্য পরে কড়া প্রতিক্রিয়াই দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘‘চোরের মায়ের বড় গলা। শুভেন্দু আয়নায় নিজের মুখের প্রতিচ্ছবিটা দেখুন। কী ছিলেন, আর কী হয়ে গিয়েছেন। নিম্নরুচির পরিচয় দিচ্ছেন।’’

উল্লেখ্য, গত দশ বছর ধরে যে কোনও ভোটের আগে বার বার জেলা তৃণমূল সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের ডাকে সাড়া দিয়ে প্রচারে আসতেন শুভেন্দু অধিকারী। দুই নেতার সখ্যের কথাও ফিরত দলের অন্দরে। অতীতে হাবড়ায় সভা করতে এসে মঞ্চেই শুভেন্দু এবং জ্যোতিপ্রিয় একে অন্যকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিতেন। আর সেই মঞ্চেই দাঁড়িয়ে রাজনৈতিক দায়েই পুরনো বন্ধুকে এ সব বলে আক্রমণ করলেন শুভেন্দু, মনে করছেন অনেকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here