বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে দিলীপ ঘোষের প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি কমিশনের

0

কলকাতা : রাজ্য রাজনীতিতে শীতলকুচি গুলি কাণ্ডে তরজা অব্যহত। ইতিমধ্যেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্বাচনী প্রচারে উষ্কানিমূলক মন্তব্যের জেরে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল নির্বাচন কমিশন। কমিশনের সেই সিদ্ধান্তে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলেছিল তৃণমূল নেতৃত্বরা।

তবে ওই শীতলকুচি কাণ্ডে বিজেপি নেতা রাহুল সিনহার নির্বাচনী প্রচারে ৪৮ ঘন্টার নিষেধাজ্ঞা জারি করার পাশাপাশি রাজ্য গেরুয়া শিবিরের প্রধান দিলীপ ঘোষকে শোকজ নোটিস ধরিয়েছিল নির্বাচন কমিশন । তাঁতে বুধবার সকাল ১০ টার মধ্যে জবাব তলব করেছিল কমিশন। তবে সেই জবাব দেওয়ার পরও রেহাই মিলল না দিলীপ ঘোষের।

বৃহস্পতিবার, সন্ধ্যায় কমিশনের পক্ষ থেকে, ২৪ ঘন্টার জন্য তার প্রচার নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কমিশন জানিয়েছে, আদর্শ আচরণবিধির বিভিন্ন ধারা, ১৯৫১ সালের জনপ্রতিনিধিত্ব আইন এবং ভারতীয় দণ্ডবিধির ধারা লঙ্ঘন করেছেন। কমিশন মনে করছেন, তাঁর বিবৃতি উস্কানিমূলক এবং গুরুতর জনগণের আবেগকে উস্কে দিতে পারে। এর ফলে আইন শৃঙ্খলা ভঙ্গ হতে পারে এবং নির্বাচন প্রক্রিয়ায় তার বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে।

শীতলকুচি গুলি কাণ্ডে আপত্তিকর মন্তব্যের জেরে দিলীপ ঘোষের নির্বাচনী প্রচারে ২৪ ঘন্টার জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করল কমিশন। উল্লেখ্য, গত ১১ এপ্রিল দিলীপ ঘোষ হুমকির সুরেই বলেছিলেন, ‘বাড়াবাড়ি করলে জায়গায় জায়গায় শীতলকুচি হবে’। পাশাপাশি, শীতলকুচি গুলি কাণ্ডের পরের দিন বিজেপি প্রার্থী পার্নো মিত্রের হয়ে প্রচারে গিয়ে দিলীপ ঘোষ এও বলেছিলেন যে, ‘দুষ্টু ছেলেরাই গতকাল শীতলকুচিতে গুলি খেয়েছে। দুষ্টু ছেলেরা আর বাংলায় থাকবে না’। দিলীপ ঘোষের এহেন মন্তব্যে শোরগোল পড়ে গিয়েছিল রাজনৈতিক মহলে। তারপরই কমিশনের তরফ থেকে জানানো হয়, বৃহস্পতিবার রাত ৮টা থেকে শুক্রবার রাত ৮টা পর্যন্ত কোনও প্রচার কর্মসূচিতে অংশ নিতে পারবেন না বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here