কোভিড যোদ্ধাদের জীবনবিমা প্রকল্প বন্ধ করল কেন্দ্র, ক্ষুব্ধ স্বাস্থ্যকর্মীরা

0

কলকাতা : দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে সব ডাক্তার ও নার্সদের। ভ্যাকসিনেশন পর্ব চালু হয়ে গেলেও প্রতিদিনই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা রেকর্ড গড়ছে । সেইসঙ্গে আক্রান্ত হচ্ছেন ডাক্তার-নার্সরাও। উদ্বেগজনক পরিস্থিতির মধ্যেই এবার কোভিড যোদ্ধাদের জীবনবিমা প্রকল্প বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্র। এই প্রকল্প অনুযায়ী, কোনও কোভিড যোদ্ধার মৃত্যু হলে তাঁর পরিবার ৫০ লক্ষ টাকা পাবে। এই ধরনের সিদ্ধান্তে স্বাভাবিকভাবেই অসন্তুষ্ট চিকিৎসক মহল।

কোভিড যোদ্ধাদের সম্মান জানাতে হেলিকপ্টার থেকে ফুল ছোঁড়া হয়েছিল। আত্মবিশ্বাস বাড়াতে ঘটা করে বাজানো হয়েছিল কাঁসর-ঘণ্টাও। কিন্তু সেসব শুধু দেখনদারিই। বাস্তবে দেখা যাচ্ছে একেবারে অন্য ছবি। করোনা যোদ্ধাদের ন্যূনতম সুরক্ষাও কেড়ে নিল কেন্দ্রের মোদি সরকার। বন্ধ করে দেওয়া হল করোনা যোদ্ধাদের জন্য চালু হওয়া বিমা। এখনও পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিমা পেয়েছে ২৮৭ জন ডাক্তার-নার্স-স্বাস্থ্যকর্মীর পরিবার। গত বছর লকডাউন ঘোষণার পরই কেন্দ্র ঘোষণা করেছিল, কোভিড যোদ্ধা ডাক্তার-নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, নিকাশি কর্মী, আশা কর্মীদের বিমার আওতায় নিয়ে আসা হবে। প্রাথমিক ভাবে ২০২০ সালের ৩০ মার্চ থেকে তিন মাসের জন্য এই বিমার সুবিধা চালু হয়। পরে তা ২০২১ সালের ২৪ মার্চ পর্যন্ত করা হয়। সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই দিনই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব রাজেশ ভূষণ সব রাজ্যের মুখ্যসচিবদের চিঠি দিয়ে জানিয়ে দিয়েছেন, এই বিমা প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হচ্ছে না। ২৪ মার্চের আগে কারও মৃত্যু হলে, তাঁর পরিবার বিমার টাকা পাবেন। ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত নথি জমা করা যাবে।

দেশে এই মুহূর্তে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় পৌনে ৩ লক্ষ। দৈনিক মৃত্যু পেরিয়ে গিয়েছে ষোলোশো। এই আক্রান্ত এবং মৃতদের মধ্যে একটা বড় অংশ করোনা যোদ্ধা। টিকা নেওয়ার পরও বহু চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মীর আক্রান্ত হওয়ার খবর মিলছে। এসব সত্ত্বেও মৃত্যুভয় উপেক্ষা করেও করোনা যোদ্ধারা দিনরাত সাধারণ মানুষের সেবা করে যাচ্ছেন। অথচ, এ হেন বিপজ্জনক অবস্থায় করোনা যোদ্ধাদের ন্যূনতম এই সুবিধা তুলে নেওয়ার যৌক্তিকতা নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here