মন্দির মসজিদ নিয়ে রাজনীতি করে বিজেপি: তোপ দাগলেন তৃণমূলের যুব সভাপতি অভিষেক

0

পশ্চিম বর্ধমান: রাজ্যের নির্বাচন পর্ব ৫দফা শেষ আর বাকি ৩ দফা। আর তার আগেই শেষ মুহূর্তের প্রচার তুঙ্গে চালাচ্ছে সব রাজনৈতিক দলগুলি। এবার সেই শেষ মুহূর্তের প্রচার সভা পশ্চিম বর্ধমানের পাণ্ডবেশ্বর বিধানসভার তৃণমূল প্রার্থী নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর প্রচারে গিয়ে তৃনমূলের যুব সভাপতি অভিষেক বন্দোপাধ্যায় ‘মন্দিরের রাজনীতি’ নিয়ে বিজেপিকে দুষলেন। এদিন পরিসংখ্যান বিষয়ে উল্লেখ্য করে তিনি বিজেপির বিরুদ্ধে বলেন, “ওঁরা মন্দির-মসজিদের রাজনীতি করেন। আর মমতা বন্দ্যােপাধ্যায় পরিকাঠামো, উন্নয়নের রাজনীতি করেছেন। তার সুফল পাচ্ছে বাংলা।”

এছাড়া এদিন অভিষেকের বক্তব্য “মধ্যপ্রদেশ-উত্তরপ্রদেশ-গুজরাটে এক হাত দূরে দূরে মৃতদেহ দাহ করা হচ্ছে। ক্রমশ অবনতি হচ্ছে করোনা পরিস্থিতি। এর অন্যতম কারণ, এই সব রাজ্যে বহু বছর ধরে ক্ষমতায় আছে বিজেপি। সেখানে তাঁরা মন্দির-মসজিদের রাজনীতি করেছেন।” গেরুয়া শিবিরকে আক্রমণ করতে গিয়ে তুলে আনেন পরিসংখ্যানও। ডায়মন্ড হারবারের সাংসদের দাবি, “গুজরাটে জনসংখ্যা ৭ কোটি, হাসপাতালে বেড ১৮ হাজার। অথচ বাংলার জনসংখ্যা ১০ কোটি। আর এখানে হাসপাতালে শয্যা সংখ্যা করা হয়েছে ১ লক্ষ ১০ হাজারের বেশি। বিজেপি মন্দির মসজিদ করেছে। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ রাজ্যে স্বাস্থ্যের পরিকাঠামো তৈরি করেছে, উন্নয়ন করেছে।”

বর্তমান ভয়াবহ পরিস্থিতির মাঝে এরূপ আট দফায় নির্বাচন নিয়েও অভিষেক নিন্দা করেন কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্তে। তাঁর কথায়, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কমিশনকে চিঠি দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, তিন দফার ভোট একসঙ্গে করার আবেদন করেছিলেন। যাতে সভা-সমিতি কম হয়, মানুষ রাস্তায় কম বের হন। কিন্তু সেই আবেদনে কমিশন কর্ণপাত করেনি। কারণ বিজেপি চায় না একদফায় ভোট হোক। তাঁরা মানুষের জীবনের বিনিময়ে রাজনীতি করছেন।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here