শীতে আরও বাড়তে পারে করোনার প্রকোপ, সতর্ক করলেন বিশেষজ্ঞরা

0

অরিত্রা দাশগুপ্ত, লন্ডন : গোটা বিশ্বের কাছে করোনা এখন একটি ত্রাস। সারা পৃথিবীতে কোটি কোটি মানুষ আক্রান্ত। ভ্যাকসিন ছাড়া কোন দিশা খুঁজে পাচ্ছেন না বিশেষজ্ঞরা। এই পরিস্থিতিতে বর্ষা কাটতেই শীতের প্রকোপ বাড়বে। তাতে বেশ খারাপ অবস্থা হবে সাধারণের। শীতে করোনার প্রকোপ আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। বিশেষজ্ঞদের ধারণা করোনার দ্বিতীয় ঢেউ দেখতে পারেন বিশ্ববাসী।

এমনিতেই শীতকালে সর্দি-কাশির প্রভাব বেশি হয়। টাইফয়েড হয়। ভাইরাল জ্বর ঘরে ঘরে খুবই সাধারণ ব্যাপার। এর মধ্যে যদি করোনা বাড়ে তাহলে তা সামাল দেওয়া ভীষণই কঠিন ব্যাপার হবে। তাই এ বছরের শীতকাল নিয়ে বিশেষভাবে চিন্তিত বিশেষজ্ঞরা। বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন হার্ড ইমিউনিটি তৈরি কতটা হয়েছে তা কেউ জানে না। সমগ্র বিশ্বের খারাপ পরিস্থিতির অবস্থা বিবেচনা করে বিশেষজ্ঞরা একটি মডেল তৈরি করেছেন।

তাতে বলা হচ্ছে ব্রিটেনের হাসপাতালেই শীতকালে ২৪ হাজার ৫০০ থেকে ২ লাখ ৫১ হাজার মানুষের মৃত্যু হতে পারে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে। ২০২১ সালের জানুয়ারি ফেব্রুয়ারি মাসে ব্রিটেনে সর্বোচ্চ মৃত্যু হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে তারা।

করোনার প্রথম ধাক্কার সংক্রমণে এখনো পর্যন্ত ব্রিটেনে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লক্ষ ৯০ হাজারের বেশি মানুষ। দেখা যাচ্ছে করোনা কেটে যাওয়ার তিন সপ্তাহ পর্যন্ত এদের শরীরে অ্যান্টিবডির মাত্রা শীর্ষে ছিল। তারপর ধীরে ধীরে কমতে শুরু করে বলে দাবি করা হয়েছে গবেষণায়। ৬০ শতাংশ রোগীর শরীরে সংক্রমনের চূড়ান্ত পর্যায়ে ভালো অ্যান্টিবডি তৈরি হয়। তাদের মধ্যে ১৭ শতাংশ শরীরে সেই পরিমাণ অ্যান্টিবডি তিন মাসের পরেও সক্রিয় থাকে। অর্থাৎ শীতকালের পরে এই ১৭ শতাংশ বাদে সকল ব্যক্তির নতুন করে সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তবে এর মধ্যে ভ্যাকসিন তৈরি হয়ে গেলে করোনার প্রকোপ থেকে খানিকটা নিশ্চিন্ত হতে পারে বিশ্ববাসী।