প্রথমবার স্বীকার করল চীন: গালওয়ান উপত্যকায় সংঘর্ষে নিহত হয়েছিল চীনা সেনারা

0

বেজিং : ভারত ও চীনের মধ্যে সীমান্ত বিরোধ মে মাসের শুরু থেকেই অব্যাহত রয়েছে। চীন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছে, যার জন্য ভারতীয় সেনারা যথাযথ জবাব দিচ্ছে। এদিকে, চীন প্রথমবারের মতো স্বীকার করেছে যে গালওয়ান উপত্যকার সংঘর্ষে তাদের সেনারাও মারা গিয়েছিল। এর আগে, চীন এই কথা স্বীকার করতে অস্বীকার করছিল।

চীনা পত্রিকা গ্লোবাল টাইমসের সম্পাদক স্বীকার করেছেন যে, গালওয়ান উপত্যকায় চীনের সেনাবাহিনী ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছিল এবং কিছু সেনা নিহত হয়েছিল। পত্রিকার সম্পাদক হু শিজিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং-এর একটি বিবৃতিতে টুইট করেছেন যে, “যতদূর আমি জানি গালওয়ান উপত্যকার সংঘর্ষে চীনা সেনাদের নিহতের সংখ্যা ভারতের ২০ জন সেনার চেয়ে কম ছিল।” তিনি বলেন, ভারত সেদিন চীনের কোনও সেনাকে বন্দী করেনি যদিও চীন সেদিন এমনটাই করেছিল।

উল্লেখ্য, গ্লোবাল টাইমস হচ্ছে পিপলস ডেইলি দ্বারা প্রকাশিত চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির অফিসিয়াল সংবাদপত্র। শিজিন টুইটের সাথে একটি স্ক্রিনশট শেয়ার করেছেন, একটি সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছিলেন যে ভারত যুদ্ধবিরতির সময় চীনা সেনাবাহিনীর ব্যাপক ক্ষতি করেছে। বৃহস্পতিবার প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ভারত-চীন সীমান্ত বিরোধ ইস্যুতে রাজ্যসভায় একটি বিবৃতি দেন। তিনি বলেন যে, “আমরা পূর্ব লাদাখে একটি চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছি, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে বিষয়টি সমাধান করতে চাই এবং আমাদের সশস্ত্র বাহিনী দেশের সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতা রক্ষার জন্য দৃঢ়ভাবে দাঁড়িয়ে আছে।”

রাজনাথ সিং বলেন, চীন ভারতের প্রায় ৩৮,০০০ বর্গকিলোমিটার জমি লাদাখে অনধিকৃত দখল করেছে। এছাড়াও, ১৯৬৩ সালে একটি তথাকথিত সীমানা চুক্তির আওতায় পাকিস্তান অবৈধভাবে ৫,১৮০ বর্গকিলোমিটার ভারতীয় ভূখণ্ড চীনের কাছে হস্তান্তর করেছিল। এর পাশাপাশি চীন অরুণাচল প্রদেশের ভারত-চীন সীমান্তের পূর্ব অঞ্চলে ভারতের প্রায় ৯০,০০০ বর্গকিলোমিটার অঞ্চল দাবি করে।

রাজনাথ সিং বলেন যে, “আমি দেশের ১৩০ কোটি জনগণকে আশ্বস্ত করতে চাই যে আমরা কোনও মূল্যে দেশের মাথা নত হতে দেব না আর আমরা কারও মাথা নতও করতে চাই না।” তিনি বলেন, “আমাদের সেনাবাহিনী গালওয়ানে চীনের ব্যাপক ক্ষতি করেছে। চীনের কথা ও কাজের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে।”